দুই কোটি টাকা মূল্যের ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য আটক

প্রকাশ:| সোমবার, ৩ অক্টোবর , ২০১৬ সময় ০৮:২১ অপরাহ্ণ

সোমবার দুপুরে হংকং থেকে মিথ্যা ঘোষণায় আনা দুই কোটি টাকা মূল্যের ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য ভর্তি দুটি কন্টেইনার আটক করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের কর্মকর্তারা।

%e0%a6%a6%e0%a7%81%e0%a6%87-%e0%a6%95%e0%a7%8b%e0%a6%9f%e0%a6%bf-%e0%a6%9f%e0%a6%be%e0%a6%95%e0%a6%be-%e0%a6%ae%e0%a7%82%e0%a6%b2%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%87%e0%a6%b2%e0%a7%87কায়িক পরীক্ষার পর এ বিষয়ে নিশ্চিত হয় শুল্ক কর্মকর্তারা। কন্টেইনার দুটিতে ঘোষণা বহির্ভূত ২৯ টন পণ্য বেশি পাওয়া যায়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আটক করা চালানে ৬৪ লাখ টাকা শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার চেষ্টা করেছিল।

শুল্ক গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, গত ৯ জুন ঢাকার নওয়াবপুর রোডের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান পুষ্প ইলেক্ট্রনিক্স এন্ড ইলেক্ট্রিক এর পক্ষে বিল অব এন্ট্রি দাখিল করে সিএন্ডএফ এজেন্ট রাইয়ান ট্রেডিং লাইন।

বিভিন্ন ধরনের ইলেক্ট্রনিক কম্পোনেন্ট, পার্টস ও অ্যাক্সেসরিস ঘোষণায় চালানটি খালাসের চেষ্টা করা হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চালানটি খালাস পর্যায়ে আটক করা হয়।

সোমবার কায়িক পরীক্ষায় ২৪টি আইটেমের মধ্যে ২০টি আইটেমে অতিরিক্ত পণ্য পাওয়া যায়। এছাড়া মিথ্যা ঘোষণায় আনা মোটরসাইকেল বিয়ারিং, ল্যাম্প ও মিনি ফ্যান নিয়ে আসে।

আমদানিকারক ৩৬ টন ঘোষণা দিলেও দুটি কন্টেইনারে ২৯ টন পণ্য বেশি পাওয়া যায়। এর মধ্যে রিমোট কন্ট্রোল, ইউএসবি ড্রাইভ, টিভি কার্ড ও অন্যান্য পণ্যে ৬৪ হাজার পিস পণ্য বেশি পাওয়া যায়।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক হোসেন আহমদ জানান, ১২ লাখ টাকা পরিশোধ করে শুল্কায়ন সম্পন্ন করা হয়। মিথ্যা ঘোষণা এবং অতিরিক্ত পণ্য এনে ৬০ লাখ টাকা শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার চেষ্টা করেছিল আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান।

এদিকে মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে পণ্য আমদানি করায় ১৭ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এ বিষয়ে মামলা দায়েরের পর শুল্ক আদায় করা হয়।