দক্ষিণ জেলায় সওদাগরী রাজনীতির অবসান করতে হবে

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর , ২০১৬ সময় ০৯:০৯ অপরাহ্ণ

দক্ষিণ জেলায় সওদাগরী রাজনীতির অবসান করতে হবেবাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার উদ্যোগে ২৩ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকাল ৩ টায় চট্টগ্রাম চেরাগী পাহাড়স্থ কদম মোবারক বিদ্যালয়স্থ ইসলামাবাদী হলে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জনাব এস.এম. আবুল কালাম কুয়েতে রাষ্ট্রদূত নির্বাচিত হওয়ায় চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক সংবর্ধনা সভা সংগঠনের সভাপতি ও সাবেক এমপি হাসিনা মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় ভূমি প্রতিমন্ত্রী কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য আলহাজ্ব সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী এমপি, ড. আবু রেজা নদভী এমপি, সংবর্ধিত অতিথি কুয়েত’র রাষ্ট্রদূত ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এস.এম. আবুল কালাম। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি চেমন আরা তৈয়ব। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবুল কালাম চৌধুরী, রূপালী ব্যাংকের পরিচালক চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান, চিটাগাং চেম্বার অব কমার্সের সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমদ, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক এড. মুজিবুল হক, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক এড. আব্দুর রশিদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নুরুল আবসার, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আব্দুল কাদের সুজন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক এ.কে.এম. আব্দুল মতিন চৌধুরী, পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব রাশেদ মনোয়ার, আনোয়ারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দুল মোস্তফা রাজু, মোজাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল মান্নান চৌধুরী, পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন, স্বাচিপের নব নির্বাচিত কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. আ.ম.ম. মিনহাজুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা এড. জাহাঙ্গীর আলম, সাবেক ছাত্রনেতা এ.কে.এম.নাজিম উদ্দিন, মাস্টার সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, আব্দুল কালাম আজাদ, এড. আব্দুল হান্নান, সাবেক চেয়ারম্যান সালামত উল্লাহ মোল্লা, দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাদারণ সম্পাদক চৌধুরী মুহাম্মদ গালিব, আবৃত্তি শিল্পী এড. মিলি চৌধুরীর পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তপতী সেন গুপ্তা, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি কল্পনা লালা, যুগ্ম সম্পাদক স্বপ্না দত্ত, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী চসিক মহিলা কাউন্সিলর আনজুুমান আরা, খালেদা আক্তার চৌধুরী, উত্তর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সৈয়দা রিফাত আক্তার নিশু, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী রেহেনা ফেরদৌস, সুলতানা আক্তার, রাজমীন আকতার, নিলুপার জাহান, লতিফা চৌধুরী, হাসিনা আক্তার, রেহেনা কাজেমী, জান্নাত বেগম, সাজেয়া বেগম, ফেরদৌস আক্তার, জেরিন, মর্জিনা আক্তার লুচি, নিপু তালুকদার, এড. সুচিত্রা লালা, এড. পারভিন আক্তার, কামরুন্নাহার, কৃষ্ণা দাশ, কোহিনুর আক্তার, সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ফয়েজ আহমদ লিটন, পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা আশীষ তালুকদার, নুরুল আবসার, জয়নাল আবেদীন, সবুজ বড়–য়া, কামাল উদ্দিন চৌধুরী, অনিমেষ বড়–য়া, বোয়ালখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ সেলিম, দক্ষিণ জেলা বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার এস.এম.মোর্শেদ, মহানগর ওলামালীগের সভাপতি মোঃ আবুল কালাম, দক্ষিণ জেলা কৃষক লীগ নেতা মোঃ আলমগীর খান, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রনেতা জায়েদ বিন কাশেম, সাবেক দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ নেতা আরিফুজ্জামান আরিফ, খুরশিদ উল আলম খোকন, ছাত্রলীগ নেতা এস.এম. জাবেদ সরওয়ার, মোঃ আরিফ, শাকিল মাহমুদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে নৃত্য ও গান পরিবেশন করেন প্রযুক্তা বৈদ্য ও মুধুলিতা।

এস.এম. আবুল কালামের সংর্ধনা সভায় প্রধান অতিথি ভূমি প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব সাইফুজ্জামান জাবেদ এমপি বলেন, এস.এম. আবুল কালামকে রাষ্ট্রদূত করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান এবং নবনির্বাচিত রাষ্ট্রদূতকে অভিনন্দন। তিনি বলেন এস.এম. আবুল কালাম রাজনীতির নতুন মুখ নই। দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রাম করে আজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক মূল্যায়ন হয়েছে। তিনি বলেন রাজনীতিতে স্বার্থছাড়া অনেক নেতাই কাজ করে গেছেন। এবং প্রতিদানে ত্যাগের জন্য মূল্যায়িত হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞ বোধ এবং সঠিকভাবে মূল্যায়ন করতে আমি দেখিছি। তিনি বলেন আমরা যারা রাজনীতি করছি অনেক সময় পাওয়ার জন্য এবং অনেক সময় দেওয়ার জন্য করছি। তিনি বলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমানে যারা বিভিন্ন পদে দায়িত্ব রয়েছে তাদের সকলের মুখে একটি বাক্য একটি সুর দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের অন্যায় কার্যক্রমের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হতে হবে। তিনি বলেন, যে ব্যক্তি আমার বাবার সাথে দীর্ঘ ৩০ বছর রাজনীতি করেছে কিন্তু আমার প্রশ্ন আমার পিতা জননেতা আখতারুজ্জামান বাবু থেকে উনি কি শিক্ষা গ্রহণ করেছে। আমার পিতার মধ্যে সবসময় উদারতা মহানুভবতা এবং দলের নেতাকর্মীদের প্রতি যে আন্তরিকতা অন্তর্নিহিত ছিল তার বিন্দু মাত্রও মোসলেম উদ্দিনের দেখতে পাইনি। রাজনীতিতে উদার হতে হয় রাজনীতি করে মানুষ সম্মান পাওয়ার জন্য, কিন্তু সম্প্রতি দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নিয়ে অনেক কথা। বিশেষ করে পদ ও মনোনয়ন বাণিজ্য এবং চেয়ারম্যান নমিনেশন নিয়ে অনেক অন্যায় সিদ্ধান্ত হয়েছে যা আমাদের রাজনীতির জন্য দুঃখজনক। দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি যখন হয়েছিল তখন আমরা আশান্বিত ছিলাম আমার পিতার ধারাবাহিকতা রক্ষা করবে, মানুষের কল্যাণে কাজ করবে কিন্তু আমি এমপি, মন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে আমার এলাকায় দায়িত্বসহ বিভিন্ন কার্যক্রমে ব্যবস্থা থাকায় দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যক্রমে সময় দিতে পারি নাই। কিন্তু দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতারা আমাকে বার বার অনুরোধ করার পর আমি পর্যবেক্ষণ করে দেখলাম বিগত দেড় বছরেও দক্ষিন জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে ত্যাগীদের কোন মূল্যায়ন হচ্ছে না উপরন্তু মনোনয়ন ও পদ বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অন্যায় কার্যক্রমে সংগঠন পরিচালিত হচ্ছে। এই অন্যায় কার্যক্রম এবং দূর্নীতির বিরুদ্ধে সকল ত্যাগী নেতাদের অনুরোধে এবং তাদের সাথে ঐক্যবদ্ধ থেকেই আমি নিজেই এ সমস্ত অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার প্রতিজ্ঞা করছি।
সংবর্ধিত অতিথি এস.এম. আবুল কালাম বলেন, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ, তারা আজকে আমাকে যে সম্মান দিয়েছে তা চিরদিন মনে রাখব। দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ থেকে আমি প্রাপ্য সম্মান পায় নাই কারণ বর্তমানে দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সওদাগরী মনোনয়ন ও পদ বাণিজ্য শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, বর্তমানে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের তিনটি চ্যালেঞ্জ যথা জঙ্গিমুক্ত, দুর্নীতি এবং সওদাগরমুক্ত রাজনীতির পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। এ পদ বাণিজ্য আত্মীয়তা করণ এবং দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে এত দিন প্রতিবাদ করার কেউ ছিল না, এখন আমরা প্রতিবাদের জন্য নেতা পেয়েছি মাননীয় ভূমিপ্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমাদেরকে অবস্থান নিতে হবে।
বিশেষ অতিথি নজরুল ইসলাম এমপি বলেন, জননেতা আখতারুজ্জামান বাবু এমপি ছিলেন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের ছাতার মত। যে কোন র্দুযোগ এবং দলের দুঃসময়ে বাবু ভাই আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে হাল ধরেছেন। আজ তারই সুযোগ্য সন্তানকে দলের অন্যায় কার্যক্রমের বিরুদ্ধে নেতৃত্বে দিতে হবে। তিনি বলেন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যক্রমে যে অন্যায় এবং অসাংগঠনিক কার্যক্রম বর্তমান কমিটি করে যাচ্ছে তার বিরুদ্ধে আমাদেরকে স্বোচ্ছার হতে হবে। তিনি এস.এম. আবুল কালামকে রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে রাষ্ট্রদূত পদে নিযুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে যে সৎ রাজনীতিবিদরা মূল্যায়ন হয় তা অনুধাবন করার জন্য নেতাকর্মীদের আহ্বান জানান।
বিশেষ অতিথি ড. আবু রেজা নদভী এমপি বলেন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতি অসুস্থ এবং অন্যায় কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়েছে, এর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগকে সুষ্ঠু ও সঠিকভাবে পরিচালনা করার কাজে ত্যাগী নেতাদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।
বিশেষ অতিথি চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি রূপালী ব্যাংকের পরিচালক সাংবাদিক আবু সুফিয়ান বলেন রাষ্ট্রদূত এস.এম. আবুল কালামকে সম্মান করার দায়িত্ব ছিল চট্টগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের কিন্তু তারা সেই দায়িত্ব পালন করেনি। দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সে দায়িত্ব পালন রাজনীতির মর্যাদা রক্ষার চেষ্ঠা করেছে। তিনি বলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ বর্তমানে ব্যক্তি স্বার্থ এবং বিভিন্ন অসাংগঠনিক কার্যক্রমে লিপ্ত। সংগঠনের সাবেক ছাত্রনেতা ও ত্যাগীদের কোন রকম বর্তমান কমিটি মূল্যায়ন করছেনা। তিনি বলেন রাজনীতির ভবিষ্যৎ ফসল ও ভবিষ্যত কান্ডারী ছাত্রলীগকে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী আজ প্রায় ধ্বংস করে দিয়েছে এই কমিটি থাকাকালীন সময়ে দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক দলীয় অফিসে মারামারির সম্মুখীন হয়ে মৃত্যু বরণ করেছেন। আজ প্রায় ৪ বছর ধরে ছাত্রলীগের কর্মীদের দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা ব্যবহার করে যাচ্ছে কিন্তু ছাত্রলীগ নেতাদের কোন কমিটি এখনো করছে না। এর জন্য আমাদেরকে ভবিষ্যতে অনেক নেতৃত্বশূন্য সৃষ্টি হবে।