থ্রিজি সেবা চালু হলে গ্রাহকরা ফেইসবুক, ভিডিও, ছবি খুব সহজে দেখতে পারবেন-রবি

প্রকাশ:| শনিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর , ২০১৩ সময় ১০:০২ অপরাহ্ণ

robi 3g pcরাজধানী ঢাকার পাশাপাশি বন্দর নগরী চট্টগ্রামেও আগামী মাসের মধ্যে থ্রিজির মাধ্যমে সেবা চালুর করবে দেশের বৃহৎ মোবাইল অপারেটর রবি।

এশিয়া জুড়ে থ্রিজি ও এলটিই(লং টার্ম অভ্যুলেশন) সেবা প্রদানকারী আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান আজিয়াটার সহায়তায় বাংলাদেশে রবি এ সেবা দেবে।

গ্রাহকরা তাদের পুরনো সিমেই থ্রিজি সেবা উপভোগ করতে পারবেন। তবে প্রয়োজনে গ্রাহকরা বিনামূল্যে পুরনো সিমের বিনিময়ে নতুন থ্রিজি সিম পাবেন।

শনিবার দুপুরে নগরীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান, ররি’র চিফ মার্কেটিং অফিসার প্রদীপ শ্রীবাস্তব।

তিনি জানান, অক্টোবরের মধ্যে রবি স্বল্প পরিসরে থ্রিজি সেবা চালু করবে। এর বছরের মধ্যে ক্রমান্বয়ে ঢাকা,চট্টগ্রাম, সিলেট ‍ও কুমিল্লায় চালু করা হবে।

থ্রি-জি বাংলাদেশের জন্য নতুন প্রযুক্তি মন্তব্য করে তিনি বলেন,‘কেবল গতি নয়, মানসম্পন্ন সেবার দিকে আমাদের নজর থাকবে বেশি।‘

২০১৪ সালের প্রথম প্রান্তিকের মধ্যে মোট জনসংখ্যার ৩৫ শতাংশ থ্রিজি সেবার আওতায় আনার লক্ষ্যে কাজ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

প্রদীপ বলেন, চট্টগ্রামই রবির সবচেয়ে গ্রাহক বেশি। তাই থ্রিজি সেবার সংবাদ জানাতে এখানে আসা। তিনি বলেন,‘শ্রীলঙ্কা, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর ও ভারতের সহযোগী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করে আমাদের বিভিন্ন ধরণের অভিজ্ঞতা হয়েছে। সেই অভিজ্ঞতার আলোকে থ্রিজি সেবা দেয়ার চেষ্টা করবো।’

তিনি বলেন,‘রবি থ্রিজি লাইসেন্স গ্রহণের মাধ্যমে তথ্য আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তনের সূচনা করেছে। এতে দেশে তথ্য সেবায় সক্ষমতা ও প্রসারতা বাড়বে, উন্নয়ন ঘটবে মানুষের জীবন মান। বিশ্বের যে প্রান্তেই থাকুক না কেন থ্রিজির মাধ্যমে একে অপরের সঙ্গে যুক্ত থাকার সুযোগ পাবে।‘

‘তৃতীয় প্রজন্মের(থ্রিজি) লাইসেন্স রবি’র উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন তথ্য সেবাকে শুধু গতিশীলই করবে না, বরং এটি বর্তমানে বিস্তৃত, নির্ভরযোগ্য ও উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন নেটওয়ার্ককে পরিপূর্ণতা দেবে।‘

চিফ মার্কেটিং অফিসার জানান, বিটিআরসি আয়োজিত থ্রিজি তরঙ্গ বরাদ্দ নিলাম থেকে গত রোববার রবি আজিয়াটা লিমিটেড ৫ মেগাহার্টজ তরঙ্গ বরাদ্দ পায়। ২ হাজার ১০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডের অংশ এই তরঙ্গ, থ্রিজি সুবিধার মাধ্যমে তথ্য আদান প্রদানের উদ্ভাবনী প্যাকেজের মাধ্যমে এই খাতে রবি তার অবস্থান উন্নত ও বিস্তৃত করবে।

অপারেটরটি ইতোমধ্যে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনে থ্রিজি লাইসেন্স নিলামের ১০০ শতাংশ এবং স্পেকট্রাম ফি’র ৬০ শতাংশ টাকা পরিশোধ করে লাইসেন্স গ্রহণ করেছে। প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি আমদানির জন্য রবিকে ‘অনাপত্তিপত্র’ দিয়েছে বিটিআরসি।

আকর্ষণীয় ও সাশ্রয়ী প্যাকেজের ও বান্ডেল অপার ঘোষণা করা হবে।

থ্রিজি সেবা চালু হলে গ্রাহকরা ফেইসবুক, ভিডিও, ছবি খুব সহজে দেখতে পারবেন। এছাড়া ভিডিও করা যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে রবির এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মাহমুদুর রহমান, চিফ টেকনোলজি অফিসার একেএম মোরশেদ, ভাইস প্রেসিডেন্ট (কর্পোরেট কমিউনিকেশন এন্ড মিডিয়া রিলেশন) সৈয়দ তালাত কামাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।