থানায় ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ০৮:৩৪ অপরাহ্ণ

সীতাকুণ্ডে জামায়াত-পুলিশের সংঘর্ষ এবং অবরোধের কারণে থানায় আশ্রয় নিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন।
ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন
শুক্রবার সকাল ১১টা থেকে দুপর ১২টা পর্যন্ত থানায় আশ্রয় নিয়ে তিনি বিপুল সংখ্যক র‌্যাব-পুলিশের প্রহরায় মহাসড়কের সীতাকুণ্ড অংশ অতিক্রম করে তার নিজ নির্বাচনী এলাকা মিরসরাইয়ে যান।

বিষয়টি স্বীকার করে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বাংলামেইলকে বলেন, ‘আমি নগরীর নন্দন কাননের বাসা থেকে সকাল ১০টার দিকে নিজ নির্বাচনী এলাকায় যাচ্ছিলাম। এসময় জামায়াত-শিবিরের অবরোধ ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ দেখে কিছু সময়ের জন্য থানায় অবস্থান করি। এরপর দুপুর ১২টার পর মিরসরাই যাই।’

পুলিশের ভূমিকা নিয়ে আওয়ামী লীগের এ নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘পুলিশের দায়সারা ভাবের কারণে জামায়াত-শিবির এমন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তাদের কঠোরভাবে দমনে পুলিশ ব্যর্থ হয়েছে।’

এর আগে সীতাকুণ্ডে হরতালে সহিংসতার ঘটনায় জামায়াতের ১৯ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার সকাল থেকে পুলিশের সঙ্গে জামায়াত-শিবির কর্মীদের দফায় দফায় সংঘর্ষ শুরু হয়।

সীতকুণ্ডের বাড়বকুণ্ড, হাসপাতাল গেটসহ মহাসড়কের বিভিন্ন অংশ অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ রাখে বিক্ষোভকারীরা। এতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যান চলাচল ব্যহত হয়। সৃষ্টি হয় দীর্ঘ যানজট।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে হরতালে সহিংসতার মামলায় ১৯ আসমিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এই খবর পেয়ে সীতাকুণ্ডের বাড়বকুণ্ডে সকালে ৭টার দিকে মহাসড়ক অবরোধ করে গাড়ি ভাঙচুর করে জামায়াত-শিবিরকর্মীরা। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে অবরোধকারীদের ধাওয়া দিলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে পুলিশ রাবার বুলেট, টিয়ার সেল ছুঁড়ে অবরোধকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এরপর সকাল ৯টার দিকে উপজেলার হাসপাতাল গেট এলাকায় সড়ক অবরোধ করে জামায়াত-শিবির। সেখানে পুলিশ গেলে তখনও পুলিশ-শিবির সংঘর্ষ হয়। এই সংঘর্ষ থামতে না থামতেই তারা সীতাকুণ্ডের বিভিন্ন স্থানে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে।

শিবির মহাসড়কের ১৭ কিলোমিটার অংশে বিভিন্ন গ্রুপে ভাগ হয়ে পুলিশকে তিন-চারটি অংশে ব্যস্ত রেখে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে আর গাড়ি ভাঙচুরের মহোৎসবে মেতে উঠেছে। হাইওয়ে পুলিশ ও থানা পুলিশ, র‌্যাব তাদের সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে। তবে দুপুরের পর থেকে মহাসড়কে যান চলাচল কিছুটা স্বাভাবিক হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

জামায়াত-শিবিরকে সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে পরোক্ষভাবে স্বীকার করে সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম বদিউজ্জামান বলেন, ‘ভাই ঝামেলায় আছি। একের পর এক ঝামেলার খবর আসছে। একদিকে গেলে অন্যদিকে শুরু হচ্ছে ঝামেলা। এরপরও আমরা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছি।’