তুচ্ছ অজুহাতে প্রার্থিতা বাতিল করছেন-রিজভী

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি , ২০১৬ সময় ১০:৫৮ অপরাহ্ণ

ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) প্রথম ধাপের নির্বাচনে অন্তত ১১৪টি ইউনিয়নে বিএনপির কোনো প্রার্থী থাকছেন না। দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাধা, হুমকি-ধমকি এবং তুচ্ছ অজুহাতে স্থানীয় নির্বাচন কর্মকর্তারা বিএনপির মনোনীত প্রার্থীদের প্রার্থিতা বাতিল করছেন। এতে বিএনপির প্রায় ১১৪ জন মনোনীত প্রার্থী তাঁদের মনোনয়নপত্র জমা দিতে না পারাসহ তাঁদের প্রার্থিতা হারিয়েছেন।

আজ শুক্রবার বিকেলে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ সব কথা বলেন।
রিজভী অভিযোগ করেন, নির্বাচন কমিশন সরকারি দলের প্রার্থীদের বিজয়ী করতে একেবারেই মরিয়া। এ ধরনের ঘটনা এদেশে নজিরবিহীন। ভোট হচ্ছে গণতন্ত্রের একটি বড় উপাদান, মানুষের ভোট ছাড়া গণতন্ত্রবিনাশী নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশনের এই কৃতিত্ব জাতি চিরদিন মনে রাখবে। সরকারের আজ্ঞাবাহী কমিশন দিয়ে নির্বাচনী ব্যবস্থাকে পুরোপুরি ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে।
রিজভী বলেন, তাঁরা জানতে পেরেছেন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য কমিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে নির্বাচন কমিশন। এমনকি নির্দেশনাও শিথিল করা হচ্ছে। কী উদ্দেশ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংখ্যা কমানো ও নির্দেশনা শিথিল হচ্ছে, কেন কেন্দ্রপ্রতি তিনজন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য সংখ্যা কমিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে, তা সবার কাছে অত্যন্ত সুস্পষ্ট। এসব হচ্ছে ইউপি নির্বাচনে শাসকদলের চেয়ারম্যান প্রার্থীদের জিতিয়ে দেওয়ার মহাপরিকল্পনা।
নির্বাচন কমিশনের কঠোর সমালোচনা করে রিজভী অভিযোগ করেন, সরকারের ইয়ার্কি ঠাট্টার সহচর হিসেবে সার্কাসের ভাঁড়ের মতো ভূমিকা পালন করছে কমিশন। শুধু নিজেদের চাকরির প্রতিদানে নজরানা হিসেবে সরকারকে আগের নির্বাচনগুলির মতো ইউপি নির্বাচনেও ইউপি চেয়ারম্যান পদ পাইয়ে দেওয়ার যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছে।