তিস্তা চুক্তি হয়নি মমতার আপত্তির কারনে

প্রকাশ:| রবিবার, ১১ মে , ২০১৪ সময় ০৭:১৩ অপরাহ্ণ

পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের আপত্তির কারনে তিস্তা চুক্তি হয়নি বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, এতোদিন এ চুক্তি না হলেও সামনে আলোচনার মাধ্যমে তা সমাধান হবে। রোববার সচিবালয়ে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় পরিদর্শনকালে কর্মকর্তাদের উদ্দেশে দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রকৃতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নদী শাসন এবং বন্যা নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানিয়ে তিনি নদীর স্বাভাবিক গতি-প্রবাহ অক্ষুণœ, নাব্যতার উন্নয়ন এবং বাঁধ ও ¯¬ুইস গেট নির্মাণে আরো সতর্ক হওয়ার নির্দেশ দেন।
বলেন, আমাদের বন্যা নিয়ন্ত্রণ, নদী শাসন, খাদ্য উৎপাদনের জন্য সেচ এবং মাছের চাষ করার জন্য নদী শাসন প্রয়োজন। তবে কোন অবস্থাতেই নদীর স্বাভাবিক গতি-প্রবাহকে ব্যহত করা যাবে না।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার ভারতের সঙ্গে তিস্তা নদীর পানি বন্টন চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য অব্যাহতভাবে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে আপোষ-আলোচনার মাধ্যমে অভিন্ন নদ-নদীর পানি বণ্টন সমস্যা সমাধানে আগ্রহী। এরই সূত্র ধরে বাংলাদেশ ও ভারত একটি ফলপ্রসু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে এবং তিস্ত চুক্তি স্বাক্ষরে ঐকমত্যে পৌঁছেছে। শেখ হাসিনা বলেন, ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার আন্তরিক ছিল, কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর আপত্তির কারণে চুক্তিটি সম্পন্ন হয়নি। যা ছিল দুঃখজনক ঘটনা। তবে আমি আশাবাদি, আলোচনার মাধ্যমে এ সমস্যার সমাধার হবে। এ অঞ্চলের অভিন্ন নদ-নদীর পানি সম্পদের ব্যবস্থাপনার সহযোগিতার ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা করে যৌথ উদ্যোগে গঙ্গা ব্যারেজ নির্মাণ করতে হবে। অন্যথায় তা সংশি¬ষ্ট দেশগুলোর মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে পারে।
অনুষ্ঠানে পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ সূচনা বক্তব্য রাখেন। পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম বীর প্রতিক, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আবদুস সোবহান সিকদার, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব আবুল কালাম আজাদ, পানি সম্পদ সচিব ড. জাফর আহমেদ খান এবং মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন বিভাগ ও বোর্ডের কর্মকর্তাবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।