তিন পার্বত্য জেলায় হঠাৎ করেই ম্যালেরিয়ার প্রকোপ বেড়েছে

প্রকাশ:| রবিবার, ২৪ আগস্ট , ২০১৪ সময় ১১:৫৮ অপরাহ্ণ

তিন পার্বত্য জেলায় হঠাৎ করেই ম্যালেরিয়ার প্রকোপ বেড়েছে। চলতি বছরের সাত মাসে তিন পার্বত্য জেলায় আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে ম্যালেরিয়া আক্রান্তের সংখ্যা। এর মধ্যে রাঙ্গামাটিতে এ রোগে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৪২৬ জন, বান্দরবান পার্বত্য জেলায় ৭ হাজার ৮৪৮ জন এবং খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায় ৪৮০ জন। এ বছর রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা ম্যালেরিয়া আক্রান্ত রোগীর মধ্যে কেউ মারা না গেলেও বান্দরবান পার্বত্য জেলায় ১২ জন এবং খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায় ৯ জন রোগী মারা গেছেন বলে পরিসংখ্যানে জানা যায়। বিগত ২০০৮ সালে এ তিন পার্বত্য জেলায় ম্যালেরিয়া নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি চালু হওয়ার পর ২০১৩ সাল পর্যন্ত ম্যালেরিয়া রোগ নিয়ন্ত্রণে আশানুরূপ সফলতা এলেও চলতি ২০১৪ সালের মে থেকে জুলাই পর্যন্ত ম্যালেরিয়া রোগে আক্রান্তের সংখ্যা হঠাৎ করে বৃদ্ধি পায়। এ বৃদ্ধির মাত্রা এত বেশি যে বর্তমানে এটিকে মহামারী হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। হঠাৎ এ রোগের প্রাদুর্ভাব মহামারী আকারে পৌঁছানোর কারণ বের করার জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতরের পক্ষ থেকে একাধিক টিম কাজ করছে। ২০১৪ সালের প্রথম সাত মাসে ম্যালেরিয়া রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বিগত ৬ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে। ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলায় কোনো মৃত্যুর ঘটনা না ঘটলেও অপ্রত্যাশিতভাবে এ রোগের মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পক্ষ থেকে। জেলার সীমান্তবর্তী চারটি উপজেলাকে ম্যালেরিয়ার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা ঘোষণা করে এখানে ম্যালেরিয়া রোগ নিয়ন্ত্রণে বিশেষ কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণের বিশেষ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি স্বাস্থ্য বিভাগকে সম্ভাব্য পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। পরিসংখ্যানে জানা যায়, চলতি বছরের জুলাই পর্যন্ত রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলায় ম্যালেরিয়া রোগে আক্রান্ত হয়েছে ৭ হাজার ৮৪৮ জন। এর মধ্যে জেলার সীমান্তবর্তী চারটি উপজেলা বাঘাইছড়ি, বরকল, বিলাইছড়ি ও জুড়াছড়িতে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৪২৬ জন যা মোট আক্রান্তের হারের শতকরা প্রায় ৮২ ভাগ। রাঙ্গামাটি সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার যে সব উপজেলায় ম্যালেরিয়া রোগের প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি পেয়েছে সেখানে স্বাস্থ্য বিভাগের পাশাপাশি ব্র্যাক এবং হিল ফ্লাওয়ার যৌথভাবে কাজ করছে। এদিকে স্বাস্থ্য বিভাগের এক পরিসংখ্যানে জানা যায়, সাত মাসে বান্দরবান পার্বত্য জেলায় ১২ জন রোগী ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে।