তারেক রহমানের ১২ তম কারাবন্দি দিবস পালনের সব খবর

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বুধবার, ৭ মার্চ , ২০১৮ সময় ০৮:২২ অপরাহ্ণ

ক্ষমতায় টিকে থাকতে হলে গণতন্ত্রের পথে ফিরে আসুন এবং অবিলম্বে পদত্যাগ করুন

তারেক রহমানের ১২ তম কারাবন্দি দিবস উপলক্ষে ছাত্র দলের আলোচনা সভায়-আবুল হাশেম বক্কর

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল চট্টগ্রাম মহানগরের উদ্যোগে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ১২ তম কারাবন্দি দিবস উপলক্ষে কাজির দেউরীস্থ নাসিমন ভবন, দলীয় কার্যালয়ে এক দোয়া মাহফিল চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী মুহাম্মদ সিরাজ উল¬াহ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মুহাম্মদ জসিম উদ্দিন চৌধুরীর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান। অদ্য ৭ মার্চ দুপুর ২ ঘটিকায় অনুষ্ঠিত দোয়া মাহফিলে আরও উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি নিয়াজ খান, যুগ্ম সম্পাদক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আনোয়ার হোসেন লিপু, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নকিব উদ্দিন ভূইয়া, মহানগর ছাত্রদল নেতা সামিয়াত আমিন জিসান, সৌরভ প্রিয় পাল, মীর ছাদেক অভি, দিদার হোসেন, এন মোহাম্মদ রিমন, শাহাদাত হোসেন নাবিল প্রমুখ।
উক্ত দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি আবুল হাশেম বক্কর বলেন, তারেক রহমানকে দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রকারীরা গ্রেফতার ও নির্যাতন করে জিয়া পরিবারকে বাংলাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন করার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু বাংলাদেশের ১৬ কোটি জনতার স্বপ্ন প্রাণ তারেক রহমানের সর্বোচ্চ জনপ্রিয়তায় ঈষান্বিত হয়ে তারেক রহমানকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করে বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে দূরে রাখার অপচেষ্টা করেছিল তৎকালীন অবৈধ ১/১১ সরকার এবং বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার সে ষড়যন্ত্রকে বলবৎ রেখে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য সন্ত্রাস চালিয়ে যাচ্ছে। এতেই প্রতীয়মান হয়ে যে, বাংলাদেশের মানুষ জিয়া পরিবারের প্রতি আন্তরিক, বাংলাদেশের স্বাধীনতার সংগ্রামে জিয়া পরিবারের অবদান অপরসীম। তাই বর্তমান সরকারকে বিপন্ন গণতন্ত্রকে সুসংহত করে নির্বাচন দিয়ে সমঝোতায় আসার আহবান জানান এবং তারেক রহমানের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবী জানান।

 

আগামী দিনে সমৃদ্ধ দেশ গঠনে তারেক রহমান জাতিকে নেতৃত্ব দিবে

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ১২ তম কারাবন্দি দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রদলের দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায়-ব্যারিষ্টার মীর হেলাল


বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটি অন্যতম সদস্য, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম সুপ্রীম কোর্ট শাখার যুগ্ম সম্পাদক ব্যারিষ্টার মীর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন বলেছেন, সকল অপপ্রচার চক্রান্ত ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে আগামী দিনে একটি উন্নতি ও সমৃদ্ধ দেশ গঠনে তারেক রহমান জাতিকে নেতৃত্ব দিবে। তিনি আজ বিকেলে নগরীর নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের ১২ তম কারাবন্দি দিবস উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল চট্টগ্রাম উত্তর জেলা শাখা আয়োজিত এক দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন। ব্যারিষ্টার মীর হেলাল বলেন, শহীদ জিয়ার দুরদর্শী নেতৃত্ব ও রাজনৈতিক দর্শন যখন আন্তর্জাতিকভাবে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল ঠিক তখন দেশ বিদেশী ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে জিয়াউর রহমানকে হত্যা করা হয়। কিন্তু শহীদ জিয়ার আদর্শকে তারা হত্যা করতে পারেনি। যা বাংলাদেশের কোটি মানুষের ধমনীতে মিশে গিয়েছে। শহীদ জিয়া ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সকল নেতৃত্বের গুনাবলী তারেক রহমানের মধ্য সঞ্চায়িত বলে উল্লেখ করে মীর হেলাল বলেন, তার যোগ্য নেতৃত্বেই আগামী দিনে বাংলাদেশ সকল সেক্টরে দক্ষিণ এশিয়া ও মুসলিম উম্মকে পথ দেখাবে। তারেক রহমানে ব্যাপক জনপ্রিয় তাই আওয়ামীলীগ নেত্রী ও তার দলের নেতাদের ঈর্ষার প্রধান কারণ বলে উল্লেখ করে মীর হেলাল বলেন, শেখ হাসিনার দিন শুরু হয় তারেক রহমানে সমালোচনা করে। ব্যারিষ্ঠার মীর হেলাল অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে সকল রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানান। উত্তর জেলা ছাত্রদলের সভাপতি জাহিদুল আবছার জুয়েল’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মনিরুল আলম জনি’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উত্তর জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও হাটহাজারী উপজেলা বিএনপির আহবায়ক নুর মোহাম্মদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-সভাপতি সওয়ার উদ্দিন সেলিম, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক আকবর আলী, জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, মোরশেদ হাজারী, যুগ্ম সম্পাদক ওমর ফারুক চৌধুরী ডিউক, সহ-সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ, মিরসরাই উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি সরওয়ার হোসেন রুবেল, হাটহাজারী উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব ওহিদুল ইসলাম টিটু, ফটিকছড়ি বিশ্ববিদ্যালয়ের আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ অসংখ্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে যেকোন ষড়যন্ত্র জনগণ রুখে দিবে-উত্তর জেলা বিএনপির তারেক রহমানের কারাবন্দী দিবসের সভায় বক্তারা

বিএনপি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন তারেক রহমানের ১২তম কারাবন্দী দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল করেছে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। বুধবার বিকালে নগরীর নাসিমন ভবন মসজিদে এ দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিলে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের দীর্ঘায়ু এবং সুস্থতা কামনা করা হয়। দোয়া মাহফিল পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি এম এ হালিম, অধ্যাপক ইউনুস চৌধুরী, চাকসু ভিপি মো.নাজিম উদ্দিন,আলহাজ¦ ছালাউদ্দিন, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক নুরুল আমিন, নুর মোহাম্মদ, আজম খান, এডভোকেট আবু তাহের, অধ্যাপক জসীম উদ্দিন চৌধুরী, সেলিম চেয়ারম্যান, সৈয়দ নাছির উদ্দিন, কাজী সালাউদ্দিন, সোলায়মান মনজু, সরোয়ার উদ্দিন সেলিম, তফাজ্জল হোসেন, মাহবুব ছফা, জাকির হোসেন, এম এ শুক্কুর, মোবারক হোসেন কাঞ্চন চেয়ারম্যান, , দিদারুল ইসলাম মিয়াজী, সালাউদ্দিন চেয়ারম্যান,নবাব মিয়া চেয়ারম্যান, মো.মোরসালিন, ইকবাল হোসেন,আইয়ূব খান, এস এম ফারুক, মুছলিম উদ্দিন, এডভোকেট রেজোয়ান নূর সিদ্দিকী উজ্জ্বল, মোস্তফা আলম মাসুম, সৈয়দ ইকবাল, আশফাক উদ্দিন, ফজলুল করিম চৌধুরী, আওরঙ্গজেব মোস্তফা, গিয়াস উদ্দিন, আলী নেওয়াজ মামুন প্রমুখ। সভায় বক্তারা বলেন, ‘বাংলাদেশের ইতিহাসের সাথে জিয়া পরিবারের নাম মিশে আছে। শহীদ জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন, অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করেছেন। ৭৫ পরবর্তী দেশের ক্রান্তিকালে হাল ধরেছেন। বাংলাদেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রবর্ত্তন করে সকল দলকে রাজনীতি করার সুযোগ করে দিয়েছেন। জিয়ার শাসন আশলে কোন প্রকার দুর্নীতি হয়নি। ঠিক তেমনি বেগম জিয়াও সততার সাথে দেশ পরিচালনা করেছেন। কিন্তু একটি চক্র জিয়া পরিবারকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছে। তারা চায় জিয়া পরিবার ছাড়া এদেশে নির্বাচন হোক। এ কারণে বেগম জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হচ্ছে। কিন্তু দেশের শান্তিপ্রিয় জনগণ তা হতে দিবে না। জিয়া পরিবার ছাড়া এদশে কোন নির্বাচন হবে না। যদি সরকার জিয়া পরিবার নিয়ে কোন ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা করে তবে দেশের জনগণ তা রুখে দিবে। দেশে উন্নয়নের নামে গণলুটপাট চলছে। যেদেশে গণতন্ত্র নেই সেদেশে উন্নয়ন কাল্পনিক বস্তু। দেশের গণতন্ত্রকে কবর রচনা করে তা গণভবনে আবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। সরকার রাষ্ট্রীয় বাহিনীর মাদ্যমে যা ইচ্ছে তা করছে। কিন্তু তা কতদিন? রাতের প যেমন সকাল হয় ঠিক তেমনি এ স্বৈরাচারী সরকারেরও পতন ঘটবে। সভা থেকে বেগম জিয়াসহ সকল বিএনপি নেতাকর্মীদের মুক্তি দাবি করা হয়।