তারেকের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করব না: আইনমন্ত্রী

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৭ এপ্রিল , ২০১৪ সময় ১২:১৩ পূর্বাহ্ণ

আইন, বিচার ও সংসদবিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, তারেক রহমানের পাতা ফাঁদে সরকার পা দেবে না। তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করা হলে তিনি তার সুযোগ নিয়ে বিদেশে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা করবেন। এ কারণে সরকার তারেকের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করবে না।
আজ বুধবার রাজধানীর ধানমন্ডির ডব্লিউভিএ মিলনায়তনে একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত ‘স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রের বিরোধিতা রাষ্ট্রদ্রোহিতাতুল্য অপরাধ’ শীর্ষক আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী এ কথা বলেন। খবর বাসসের।
আইনমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার যাতে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করে, সেজন্য তারেক রহমান নানা ধরনের মিথ্যাচার করছেন। কারণ রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করলে তিনি যেকোনো রাষ্ট্রের কাছে রাজনৈতিক আশ্রয় চাইতে পারবেন। ইতিমধ্যে তিনি যুক্তরাজ্য সরকারের কাছে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছেন। কিন্তু তারা সেটা দেয়নি। আমরাও তাঁর সে ফাঁদে পা দেব না।’
আনিসুল হক আরও বলেন, ‘আমরা তাঁর এ ধরনের মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করব না। তবে আমরা তাঁর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেব। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাব, যা দেখে সারা বিশ্ববাসী তাঁদের ধিক্কার জানাবে। কোনো দেশ তাঁকে আশ্রয়ও দেবে না।’
আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের উপদেষ্টা কামাল লোহানী।
সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, আইনজ্ঞ আমীর-উল-ইসলাম, ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির, লেখক ও গবেষক মুনতাসীর মামুন, সাংবাদিক আবেদ খান, মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি তুরিন আফরোজ, সাংবাদিক শাহীন রেজা নূর প্রমুখ।
আইনমন্ত্রী আরও বলেন, ‘জামায়াত অনেক নিখুঁতভাবে কাজ করে। এখন তারা মনে করছে ’৭১-এ যারা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিল তাদের সংখ্যা দিনে দিনে কমছে। এখন তরুণ প্রজন্মের কাছে তাদের এই মিথ্যা ও ভ্রান্ত বক্তব্য বিক্রি করতে পারলে তারা বাংলাদেশে রাজনীতি করতে পারবে।’