‘তারেক’কে সাজা ক্ষমতাসীনদেরই গদি হারানোর হতাশার বহিঃপ্রকাশ’

প্রকাশ:| রবিবার, ৩১ জুলাই , ২০১৬ সময় ০৮:০৫ অপরাহ্ণ

দর্শন চর্চাতৎমতাসীন স্বৈরশাসক তাদের অবৈধ ৎমতা দীর্ঘায়িত ও দেশে চলমান জঙ্গি হামলায় তাদের সম্পৃক্ততা আড়াল করতেই জননেতা তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় সাজানো সাজা প্রদান করেছে। অদ্য ৩১ জুলাই, বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান বাংলাদেশের তৃণমূল রাজনীতি বিকাশ ধারার জীবন্ত কিংবদন্তী জননেতো তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রেণোদিত সাজা দেয়ার প্রতিবাদে এবং ভিত্তিহীন সাজা বাতীলের দাবীতে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মুখে তারেক রহমান রাজনৈতিক দর্শন চর্চা ও গবেষণা কেন্দ্রের উদ্যোগে সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক আলমগীর নূর এর সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় যুব বিষয়ক সম্পাদক আওরঙ্গজেব খান সম্্রাট এর পরিচালনায় আয়োজিত এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উক্ত কথা বলেন। তিনি আরো বলেন- ৭ বছর নয়, ৭০০ বছর মিথ্যা সাজা দিলেও শহীদ জিয়ার উত্তরসূরী বাংলাদেশর ভবিষ্যৎ কর্নধার তারেক রহমানকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার শক্তি কারো নাই। তারেক রহমানের সাজায় বিএনপি নেতাকর্মীরা কোনক্রমেই হতাশ নয় বরং এই সাজানো মামলা এবং ষড়যন্ত্রমূলক সাজা ক্ষমতাসীনদেরই গদি হারানোর হতাশা আর উম্মত্ততার বহিঃপ্রকাশ।
মানববন্ধন কর্মসূতিতে বিশেষ অতিথি দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি ও বিশিষ্ট আইনজীবী ইফতেখার মহসিন বলেন- দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জাতীয় ঐক্যের আহ্বানে সাড়া না দিয়ে অবৈধ সরকার মূলতঃ সা¤্রাজ্যবাদী ও আধিপত্তবাদীদের রিমোর্ট কন্ট্রোলের ইশারায় দেশ ও জাতিকে বিভক্তি করে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের অপচেষ্টায় লিপ্ত। অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম নগর বিএনপি নেতা জাহাংগীর আলম দুলাল বলেন- “ভোটারবিহীন আওয়ামী সরকার আজকে ক্ষমতার নির্লজ্ব অপব্যবহার করে এই দেশের মাটি ও মানুষের নেতা তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ৭ বছর মিথ্যা সাজা দিয়েছে; সময় অতী দূরে নয় যেদিন হাসিনা পুত্রের অপকর্মের কারণে ৭০০ বছর জেল জরিমানা হবে আইনানুগভাবেই সে অবস্থার জন্য ভোটারবিহীন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগকে মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানান। ”
মানববন্ধন কর্মসূচিতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- সিনিয়র আইনজীবী মুক্তিযোদ্ধা এম.এ. মালেক, অ্যাড. আবদুল মান্নান,
বক্তব্য রাখেন- মোঃ আতিকুর রহমান, অ্যাড. আবছার উদ্দিন হেলাল, রফিকুল ইসলাম, অ্যাড. ইউচুফ আলম মাসুদ, শফিকুর রহমান, আরিফুর রহমান মিঠু, অ্যাড. ফরিদা আক্তার, তাসলিমা আক্তার মনি, টিটু মহাজন, মহিব্বুল্লাহ কাশেমি, অ্যাড. মরজুর হোসেন ম”ু, অ্যাড. মফিজুর রহমান, অ্যাড. নাজমুল হক খোকন, অ্যাড. জসিম উদ্দিন, অ্যাড. তৌহিদুল ইসলাম, অ্যাড. সাইফুদ্দিন আহমদ সিদ্দিকি সোহেল, এস এম. রাশেদ, অ্যাড. আনোয়ার হোসেন, অ্যাড. মোঃ সুমন, মোঃ সাকিল, মিনার, আসিফ, আলী, সোহেল প্রমুখ।