ঢাকের বোলে মাতোয়ারা মন …

mirza imtiaz প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর , ২০১৮ সময় ০১:০৮ অপরাহ্ণ

শুরু হলো শারদীয় দুর্গোৎসবের মূল আনুষ্ঠানিকতা। গতকাল ষষ্ঠী তিথিতে সায়ংকালে অর্থাৎ সন্ধ্যায় দেবীর আমন্ত্রণ ও অধিবাস অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল থেকেই পূজামণ্ডপগুলো ঢাকের বোল, মন্ত্র ও চণ্ডীপাঠ, কাঁসর ঘণ্টা, শঙ্খধ্বনি আর উলুধ্বনিতে কেঁপে উঠেছে। বিশুদ্ধ পঞ্জিকামতে আজ ২৯শে আশ্বিন (১৬ই অক্টোবর) মঙ্গলবার মহাসপ্তমী, ৩০শে আশ্বিন (১৭ই অক্টোবর) মহাষ্টমী, ৩১শে আশ্বিন (১৮ই অক্টোবর) মহানবমী, ১লা কার্তিক (১৯শে অক্টোবর) বিজয়া দশমী অনুষ্ঠিত হবে।
পূজামণ্ডপ থেকে কানে বাজছে কাসর ঘণ্টা, শাঁখ, উলুধ্বনি আর ঢাক-ঢোলের আওয়াজ। কারণ দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গার আগমন। বছর ঘুরে দেবী দুর্গা এসেছেন তাঁর বাপের বাড়িতে সঙ্গে মেয়ে লক্ষ্মী, সরস্বতী, ছেলে কার্তিক ও গণেশকে নিয়ে। ভক্তদের পূজা গ্রহণের জন্য গতকাল সোমবার স্বর্গ থেকে মর্ত্যে নেমে এসেছেন। ষষ্ঠী পূজার মাধ্যমে বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে পূজামণ্ডপে দেবীর অধিষ্ঠান দেয়া হয়েছে। এ সময় পূজামণ্ডপগুলোতে বেজে উঠেছে কাসর ঘণ্টা, শাঁখ, উলুধ্বনি আর ঢাক-ঢোলের আওয়াজ। উৎসবমুখর পরিবেশের বরণ করা হয়েছে দেবী দুর্গাকে।
গতকাল বিভিন্ন পূজামণ্ডপে চণ্ডীপাঠ, মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, শঙ্খধ্বনি, উলুধ্বনির আর ঢাক-ঢোলের বাজনার মাধ্যমে বর্ণিল আয়োজনে আনন্দ-উৎসবে ‘দুর্গতিনাশিনী’ দেবী দুর্গার ষষ্ঠী পূজা সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন পূজামণ্ডপে ধর্মীয় আলোচনা সভা, বস্ত্র বিতরণ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নৃত্যানুষ্ঠান ও নাটকসহ নানা আয়োজনে পালিত হয়েছে মহাষষ্ঠী।
আইনশৃঙ্খলার রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা গতকাল থেকে নগরের পূজামণ্ডপগুলোতে নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন।
গতকাল ষষ্ঠী তিথি ছিল সকাল ৯টা ২৫মিনিটি পর্যন্ত। এ সময়ের দুর্গাদেবীর ষষ্ঠ্যাদি কল্পারম্ভ ও ষষ্ঠী বিহিত পূজা সম্পন্ন হয়েছে। সন্ধ্যায় আমন্ত্রণ ও অধিবাস অনুষ্ঠিত হয়।
বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, চট্টগ্রাম মহানগর নগরীর জেএমসেন হলে বিভিন্ন ধর্মীয় কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মহাষষ্ঠী উদযাপন করেছেন। কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকাল ৯টায় ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প, দুপুর ২টায় মাতৃ সম্মেলন। মাতৃসম্মেলন উদ্বোধন করেন পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট চন্দন তালুকদার। প্রধান অতিথি ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, চট্টগ্রামের চেয়ারম্যান প্রফেসর শাহেদা ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্রী প্রকাশ দাশ অসিত। বিকাল ৪টায় অনুষ্ঠিত হয় উদীয়মান পুরস্কার প্রাপ্ত শিল্পীদের একক সঙ্গীতানুষ্ঠান, বিকাল ৫টায় দলীয় সঙ্গীত ও নৃত্যানুষ্ঠান, সন্ধ্যা ৬টায় প্রতিমা মঞ্চের আবরণ উন্মোচন। আবরণ উন্মোচন করেন বাঁশখালী ঋষিধামের মোহন্ত মহারাজ স্বামী সুদর্শনানন্দ পুরী মহারাজ। সন্ধ্যা ৭টায় আলোচনা সভা, বস্ত্র ও পুরস্কার বিতরণ। সভাপতি অ্যাডভোকেট চন্দন তালুকদারের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, অতিথি ছিলেন ট্রাস্টি রাখাল দাশগুপ্ত, প্রধান বক্তা ছিলেন রাজউান পৌরসভার মেয়র দেবাশীষ পালিত।
আজ মঙ্গলবার মহাসপ্তমী। প্রতিটি পূজামণ্ডপেই সপ্তমীপূজাসহ বিভিন্ন ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মহাসপ্তমী উদযাপিত হবে। সপ্তমি তিথি দিবা ১১টা পর্যন্ত। সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটের মধ্যে দুর্গা দেবীর নবপত্রিকা প্রবেশ, স’াপন ও সপ্তমীবিহিত পূজা প্রশস্তা। পূজা শেষে ভক্তদের দেওয়া হবে অঞ্জলি। সমবেত প্রার্থনা। দেবী দুর্গাকে পূজা ও অঞ্জলি দিতে সকাল থেকে পূজা মণ্ডপগুলো ভক্তদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠবে। সকলে কৃপা প্রার্থনা করবেন কল্যাণ, সুখ ও সমৃদ্ধির কামনায়। এছাড়া আজ বিভিন্ন পূজামণ্ডপে দুপুরে মহাপ্রসাদ বিতরণের ব্যবস’া করা হয়েছে। সন্ধ্যায় আরতিতে ঢাক-ঢোলের তালে জমে উঠবে পূজামণ্ডপ।


আরোও সংবাদ