ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে প্রায় ৭৫ কিলোমিটার যানজট

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ০৩:৫৭ অপরাহ্ণ

টানা ৮৪ ঘণ্টার হরতাল শেষে রাস্তায় নেমে গতকাল বুধবার রাত থেকে তীব্র যানজটের মুখে পড়তে হয়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভিন্ন যানে থাকা যাত্রীদের। মহাসড়কে চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের প্রায় ৩৭ কিলোমিটার ও কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলায় প্রায় ৩৫ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এই তীব্র যানজটে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন যাত্রীরা।
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ে দীর্ঘ যানজট
মিরসরাই (চট্টগ্রাম): আজ বৃহস্পতিবার মিঠাছড়া, মিরসরাই সদর, সুফিয়া রোড, বড়তাকিয়া ঘুরে দেখা গেছে, মহাসড়কের উভয় পাশে ছোট-বড় শত শত যানবাহন আটকে আছে। চট্টগ্রাম থেকে যাত্রা শুরু করে চালকেরা গাড়ি নিয়ে ১০-১৪ ঘণ্টা রাস্তায় বসে আছেন। চট্টগ্রাম জেলা অতিক্রম করতে পারেননি তাঁরা। কখন গন্তব্যে পৌঁছাবেন, কেউই নির্দিষ্ট করে বলতে পারছেন না।
যানজটে আটকে পড়া কাভার্ডভ্যান চালক মো. আলম জানালেন, তিনি চট্টগ্রাম থেকে গতকাল রাত নয়টায় ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করেন। আজ সকাল সাড়ে আটটায় তিনি গাড়ি নিয়ে মাত্র মিরসরাইয়ের সুফিয়া রোডে পৌঁছাতে পেরেছেন। সাড়ে ১১ ঘণ্টায় মাত্র ৬০ কিলোমিটার সড়ক পাড়ি দিয়েছেন তিনি।
সৌদিয়া পরিবহনের যাত্রী তৌফিক জানান, গতকাল সন্ধ্যা ছয়টায় তাঁদের বাসটি টেকনাফ থেকে ছাড়ে। সকাল পৌনে নয়টায় পৌঁছেছেন মিরসরাইয়ের মিঠাছড়ায়। ১৪ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে তিনি রাস্তায়। কখন ঢাকায় পৌঁছবেন বলতে পারছেন না।

মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মেহেদী হাসান বলেন, গতকাল রাত দুইটা থেকে তাঁরা ৩৭ কিলোমিটার যানজট নিরসনে কাজ করছেন। চার দিনের হরতালের পর একসঙ্গে অনেক গাড়ি রাস্তায় নেমে আসায় এমন যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

দাউদকান্দি (কুমিল্লা): ইলিয়টগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের এপিএসআই আবদুল হাকিম বলেন, ৮৪ ঘণ্টা টানা হরতালের পর এলোপাতাড়ি ও অতিরিক্ত যানবাহনের কারণে গতকাল রাত সাড়ে ১২টার পর কুমিল্লার চান্দিনা এলাকায় হঠাত্ করে ঢাকাগামী যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা পর মহাসড়কের এক পাশ দিয়ে যান চলাচল শুরু হয়। কিন্তু এলোপাতাড়ি যান চলাচলের কারণে যানজট আরও বাড়তে থাকে।

আজ বৃহস্পতিবার ভোর ছয়টার দিকে মহাসড়কের চান্দিনার গোমতী এলাকায় চট্টগ্রামগামী একটি কাভার্ডভ্যানের চাকা ফেটে যায়। আধা ঘণ্টা পর কাভার্ডভ্যানটি সরিয়ে নেওয়া হলেও যানজটের ওপর এর প্রভাব পড়ে। যানবাহনের চাপ বেশি থাকায় যানজটও তীব্র আকার ধারণ করে।

দাউদকান্দি উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের চিকিত্সক কামাল হোসেন জানান, তিনি ভোর ছয়টার দিকে বাসে উঠে চান্দিনার তীরচর এলাকায় এসে যানজটে আটকা পড়েন। আড়াই ঘণ্টায় তিনি চান্দিনা সদর পর্যন্ত পৌঁছেছেন।

কুমিল্লার ময়নামতি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, ৩৫ কিলোমিটার এলাকার তীব্র যানজট কমাতে চেষ্টা চলছে।


আরোও সংবাদ