ঢাকার ধামরাই উপজেলায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত

প্রকাশ:| বুধবার, ৩০ অক্টোবর , ২০১৩ সময় ০৯:২৫ অপরাহ্ণ

দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষঢাকার ধামরাই উপজেলায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে আজ বুধবার সন্ধ্যায় দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ৩০ জন। হতাহত ব্যক্তিদের সবাই একই বাসের যাত্রী।
সংঘর্ষের সময় একটি বাস আরেকটির ভেতরে ঢুকে যায় বলে পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। এতে ওই বাসটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। তাঁরা জানান, একটি ট্রাককে একটি বাস অতিক্রম করতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে চারজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাঁরা হলেন কুরবান আলী (৩২), দেলোয়ারা বেগম (৫০), আবদুল মজিদ (৪০) ও মজনু (৩০)। বাকি একজনের পরিচয় জানা যায়নি। তাঁর লাশ স্বজনেরা নিয়ে গেছেন। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে কুরবান আলী দুর্ঘটনাকবলিত বাস এসবি লিংকের চালক, দেলোয়ারার বাড়ি ধামরাইয়ের ভালুমে, আবদুলের বাড়ি বড় জেঠাইলে ও মজনুর বাড়ি আশুলিয়ার নবীনগরে।
ধামরাই থানার পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যা ছয়টার দিকে মহাসড়কের জয়পুরা এলাকায় পাল সিএনজি পাম্পের কাছে ঢাকা থেকে মানিকগঞ্জের সাটুরিয়াগামী এসবি লিংকের একটি বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা ডিলিংক পরিবহনের আরেকটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে একটি বাস আরেকটির ভেতরে ঢুকে গিয়ে দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে দুজন এবং হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও একজন মারা যান। এ ছাড়া ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও সাভারের গণস্বাস্থ্যকেন্দ্র হাসপাতালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় মারা যান আরও দুজন।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী পাল সিএনজির কর্মকর্তা নাজির হোসেন বলেন, সাটুরিয়াগামী বাসটি দ্রুতগতিতে একটি ট্রাককে অতিক্রম করার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় বিকট শব্দে তিনি ও আশপাশের লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। তাঁদের অনেকের অবস্থাই আশঙ্কাজনক বলে জানান তিনি।
ধামরাই থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শহীদুল ইসলাম সরদার জানান, ধামরাইগামী ডিলিংক পরিবহনের বাসটিতে কোনো যাত্রী ছিল না। বাসটির চালক ও তাঁর সহযোগী আহত হয়েছেন।
ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রশীদ বলেন, দ্রুতগতিতে একটি ট্রাককে অতিক্রম করতে গিয়েই এই দুর্ঘটনা ঘটে।