ঢাকার অবস্থা স্বাভাবিক-আমু

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৫ ডিসেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:২১ অপরাহ্ণ

আমির হোসেন আমুদেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে জরুরি অবস্থা জারি হবে কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আমির হোসেন আমু বলেন,ঢাকার অবস্থা স্বাভাবিক। ‘বর্তমানে বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া অন্য কোনো ঘটনা নেই। আমরা এখন জ্যামের মধ্যে চলাচল করছি।’

আমু বলেন, বিরোধী দল গানপাউডার ও রেলের ফিশপ্লেট খুলে, গাড়িতে আগুন দিয়ে মানুষ হত্যা করে ভয়ভীতি সৃষ্টি করছে। তাদের এই আন্দোলনের সঙ্গে জনগণের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। আজকে রাজধানীতে যে অবস্থা দেখেছেন শুধু দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া, তাতে মনে হয়েছে আন্দোলনের সঙ্গে জনগণের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

আমির হোসেন আমু বলেন, ‘আমরাও বিরোধী দলে থাকতে ১৭০ দিন হরতাল দিয়েছি এটা মিথ্যা নয়। তবে বিএনপির মতো মানুষ হত্যা করিনি। আন্দোলনের নামে তাদের এই মানুষ হত্যা একাত্তর সালকে মনে করিয়ে দেয়। তারা একাত্তরের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে দেশব্যাপী এ ধ্বংসযজ্ঞ চালাচ্ছে।’ তিনি দাবি করেন, বিএনপির সঙ্গে জামায়াত ছাড়া কোনো ইসলামিক দলের সম্পৃক্ততা নেই। হেফাজতের মধ্যেও এ নিয়ে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়েছে।
এরশাদকে বুঝতে আরও দু-এক দিন সময় লাগবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু। আজ বৃহস্পতিবার রাতে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে ১৪ দলের এক বৈঠক শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

১৪-দলীয় জোটের আসন বণ্টন হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে আমির হোসেন আমু বলেন, ‘আমরা আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিয়েছি ১৪ দল, তরীকত ফেডারেশনসহ বেশ কয়েকটি ইসলামিক দল আমাদের সঙ্গে রয়েছে।’

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সাধারণ সম্পাদক শরিফ নূরুল আম্বিয়া প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, বৈঠকে ১৪ দলের আসন ভাগাভাগি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ সময় ১৪ দলের পক্ষ থেকে রাশেদ খান মেনন ও হাসানুল হক ইনু ১৪ দলের কোন দল কটি আসন চায়, সেটার একটি তালিকা দেন। এ ছাড়া ১৪ দলের যেসব সাংসদ যে আসনে বিজয়ী আছেন, সেখানে আওয়ামী লীগের কোনো প্রার্থী না দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

এ সময় আমির হোসেন আমু এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করবেন বলে জানান। আগামী শনিবার ১৪ দলের আবার বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে।

এর আগে আমির হোসেন আমুর সভাপতিত্বে ১৪ দলের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ওবায়দুল কাদের, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু, তরীকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরোও সংবাদ