ডিসি হিলে বসন্তপ্রিয় বাঙালির পদচারণা

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি , ২০১৮ সময় ০৭:৫৯ অপরাহ্ণ

নগরীর ডিসি হিলের প্রবেশমুখ। ফুটফুটে মাস ছয়েকের শিশুকে নিয়ে দম্পতির প্রবেশ। শিশুটির মাথায় কয়েকটি ফুল। মা-বাবার পরনে হলুদ রঙের শাড়ি আর পাঞ্জাবি। এই চিত্রটিই তো বলে দিচ্ছে আজ বসন্ত।

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলের সময়টা ছিল এরকমই। বয়স্ক থেকে একেবারে শিশু, সবাই এসেছেন উৎসবে। আবৃত্তি সংগঠন বোধন এই উৎসবের আয়োজন করেছে।

বোধনের এই আয়োজনে সকাল থেকেই শুরু হয় বসন্তপ্রিয় বাঙালির পদচারণা। চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক সংগঠন বোধন শিল্পীগোষ্ঠীর গানের তালে তালে মন মাতান সবাই। পলাশ গাছের নিচে বসে শিল্পীদের ‘এলো বনান্তে পাগল বসন্ত’, ‘আজ বসন্ত জাগ্রত দ্বার’, ‘অযুত বৎসর আগে হে বসন্ত, প্রথম ফাগুনে মত্ত কৌতুহলী’ গানগুলো শুনার পাশাপাশি নিজেকে মোবাইলের ফ্রেমে বন্দী করেন তরুণ-তরুণীরা।

নগরীর কাজীর দেউড়ি থেকে ঘুরতে আসা নবদম্পতি ইমরান আহমেদ ও সাদিয়া সুলতানা। তাদের বিয়ে হয়েছে দেড় বছর আগে।

জানতে চাইলে সাদিয়া সুলতানা বলেন, ‘প্রতি বছর বসন্ত উৎসব উদযাপন করতে আসি। বুদ্ধি হওয়ার পর থেকে কোনো বছর বাদ যায়নি। তাই এবছরও সন্তানকে নিয়ে ঘুরতে চলে এসেছি। এই উৎসব বাঙালির, এই উৎসব সবার।’

সংস্কৃতিকর্মী ওসমান গনি  বলেন, বাঙালি সংস্কৃতির উৎসবের দিনে ছুটি ঘোষণা করা উচিত। কারণ যেভাবে বিদেশি সংস্কৃতি গ্রাস করেছে, এভাবে চলতে থাকলে চিরতরে হারিয়ে যাবে আমাদের ইতিহাস-ঐতিহ্য।

প্রতিবারের মতো এবারও আনন্দমুখর পরিবেশে সকাল সাড়ে নয়টায় বোধন শিল্পী গোষ্ঠীর আয়োজিত অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো.আব্দুল মান্নান। এসময় অতিথি হিসেবে ছিলেন চট্টগ্রামস্থ ভারতীয় দূতাবাসরে সহকারী হাই কমশিনার অনিন্দ্য ব্যানার্জি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বোধন আবৃত্তি পরিষদের সভাপতি সুজিৎ রায়।

বিকেলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শুরুতে শ্রোতাদের ধ্যানমগ্ন করে রাখেন বেহালা শিল্পীরা।  ভায়োলেনিস্ট চিটাগং নামে একটি সংগঠনের শিল্পীরা এই পরিবেশনায় অংশ নেন।

সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের রঙ তুলে ধরেন-আবৃত্তশিল্পী গৌতম চৌধুরী, শারমনি মৃত্তিকা, অনুপম শীল, অসীম দাশ, আরিফা সিদ্দিকা ও শ্রাবনী দাশ।


আরোও সংবাদ