ডিবি পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় মামলা

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৯ মে , ২০১৭ সময় ০৭:৫৩ অপরাহ্ণ

টেকনাফ প্রতিনিধি:
টেকনাফের সদর ইউনিয়নের ০৮নং ওয়ার্ড নাজির পাড়ায় ডিবি পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় এনাম মেম্বার সহ ১৫০ জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেছে ডিবি পুলিশ। ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক সুমন মিয়া বাদী হয়ে ধৃত ১জন সহ নামীয় ৯জন ও অজ্ঞাত ১০০/১৫০ জনকে আসামী করে টেকনাফ থানায় বৃহস্পতিবার রাতে মামলাটি দায়ের করেন। হামলার এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ। ধৃত ব্যক্তি হচ্ছে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের নাজির পাড়া গ্রামের আব্দুল হাকিমের ছেলে শামসুল আলম (২৫)। সুমন মিয়া জানান বহু মামলার আসামী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভূক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী এনামুল হকের বাড়িতে ইয়াবা উদ্ধারে অভিযানে গেলে তাদের উপর হামলা চালানো হয়। টেকনাফ মডেল থানায় ওসি মাইন উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজার ডিবি পুলিশের একটি টীম টেকনাফ সদর ইউনিয়নের নাজির পাড়া এলাকায় এনামুল হকের বাড়িতে ইয়াবা উদ্ধার অভিযানে গেলে ডিবি পুলিশের উপর হামলা চালানো হয়। এসময় ডিবি পুলিশের ব্যবহৃত নোহা মাইক্রোবাস (চট্ট-মেট্টো ্চ-১১-১৬৮৬) টি ভাংচুর করা হয়। হামলার ঘটনার ডিবি পুলিশের ৪ সদস্য সহ ৫ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ডিবি পুলিশের উপ পরিদর্শক সুমন মিয়া। আহতরা হচ্ছে এস,আই আসাদুজ্জামান, ফিরোজ মিয়া, কনেস্টবল আল আমিন, সুমাইয়া সুলতানা ও গাড়ী চালক আবুল ফজল বাপ্পি। দায়ের হওয়া মামলার আসামীরা হচ্ছে নাজির প্ড়াা এলাকার আব্দুল হাকিমের ছেলে শামসুল আলম (২৫), মৃত মোজাহের মিয়ার ছেলে এনামুল হক প্রকাশ এনাম মেম্বার (২৮), সাহাব উদ্দিন প্রকাশ সাবু (৩১), মৃত মোজাহের মিয়ার ছেলে চাঁন মিয়া (৩৮), এজাহার মিয়ার পুত্র মোঃ নুরুল হক ভূট্টে (৩২), হোছন আহমদের পুত্র মোঃ ইউনুছ (৪০), মোঃ ইউনুছের পুত্র নুরুল আমিন (২২), মৃত হাজী নজু মিয়ার পুত্র গুরা মিয়া (৫৫) ও হাজী নজু মিয়ার পুত্র আবদুল গফুর (৫০)। যার মামলা বাদী এস,আই মোহাম্মদ সুমন মিয়া, মামলা নং- ৫১। ধারা ১৪৩/১৮৬/৩৩২/৩৩৩/৩৫৩/৩০৭/৪২৭ । এদিকে মেম্বার এনামুল হকের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবী করা হয়েছে, এনামুল হক সকল মামলার জামিনে রয়েছে। সাদা পোশাকদারী আইন শৃংখলার বাহিনী পরিচয় দিয়ে অস্ত্রসহ আমাকে তোলে নেওয়ার জন্য আমার বাড়িতে ঘেরাও করে এবং পরিচয় জানতে চাইলে ডিবি পুলিশ এনাম মেম্বারকে হাতকড়া দিয়ে গাড়িতে তুলে নেয় এবং মোটা অংক দাবী করে বলে অভিযোগ করেন। পরে বিক্ষুব্ধ জনতার মুখে তাকে নিয়ে আসে। গাড়ি ভাংচুর ঘটনায় প্রতিপক্ষ এর সাথে জড়িত। কেননা তারা আমার প্রতিপক্ষ এবং আমাকে পরিকল্পিত ভাবে ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে এঘটনাটি ঘটিয়েছে।