ডিএসইতে টি-২ চালু ২রা ফেব্রুয়ারি

প্রকাশ:| রবিবার, ২৬ জানুয়ারি , ২০১৪ সময় ০৯:২২ অপরাহ্ণ

সূচকের নিম্নগতির মধ্য দিয়ে সপ্তাহের শেষ কার্য দিবস বৃহস্পতিবারের লেনদেন শেষ হয়েছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে

সূচকের নিম্নগতির মধ্য দিয়ে সপ্তাহের শেষ কার্য দিবস বৃহস্পতিবারের লেনদেন শেষ হয়েছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে

আগামী ২রা ফেব্রুয়ারি থেকে শেয়ার লেনদেন নিষ্পত্তির নতুন সময়সীমা (টি-২) চালু করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালনা পর্ষদ। ফলে ডিএসইতে শেয়ার লেনদেন নিষ্পত্তি চারদিনের পরিবর্তে এখন থেকে তিনদিনে (টি-২) সম্পন্ন হবে। তবে কোন কারণে নির্ধারিত তারিখে টি-২ চালু করা না গেলে ৯ই ফেব্রুয়ারি চালু করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ। বৃহস্পতিবার ডিএসইর বোর্ড রুমে অনুষ্ঠিত পর্ষদ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। জানা গেছে, নতুন লেনদেন নিষ্পত্তির সময়সীমা চালুর লক্ষ্যে নীতিমালা ও গেজেট প্রকাশের কাজ চলছে। এর আগে ডিএসইর ১৩টি ট্রেক অটো ডেবিট প্রক্রিয়ার (স্বয়ংক্রিয় বিকলন) আওতাভুক্ত ছিল না। যার কারণে টি-২ প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে সময়ক্ষেপণ হয়েছে। সমপ্রতি এ প্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করতে ডিএসইকে নির্দেশ দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। পরবর্তী সময়ে ডিএসইর গত পর্ষদ সভায় ওই ১৩টি ট্রেককে ৮ ডিসেম্বরের মধ্যে অটো ডেবিট প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার নির্দেশ দেয়া হয়। সব ট্রেকহোল্ডার এ প্রক্রিয়ার আওতায় চলে আসায় নতুন লেনদেন নিষ্পত্তির সময়সীমা চালু করতে যাচ্ছে ডিএসই।
এ বিষয়ে ডিএসই’র পরিচালক বলেন, আমাদের সব সদস্য ইলেকট্রনিকস ফান্ড ট্রান্সফার (ইটিএফ) সুবিধার আওতায় আসায় শেয়ার লেনদেন নিষ্পত্তির সময় কমিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আশা করছি, ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে এ নতুন পদ্ধতি চালু করব। আরেক পরিচালক বলেন, চারদিনের পরিবর্তে তিনদিনে শেয়ার লেনদেন নিষ্পত্তির নতুন সময়সীমা চালু করা জন্য প্রায় সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এখন শুধু নতুন লেনদেন নিষ্পত্তির নীতিমালা পরিবর্তন এবং তা গেজেট আকারে প্রকাশের কাজ বাকি। এগুলো সম্পন্ন হলেই ফেব্রুয়ারির ২রা তারিখে এ পদ্ধতি চালু করার ইচ্ছা রয়েছে। আর নির্ধারিত সময়ে টি-২ চালু করা না গেলে অবশ্যই ৯ই ফেব্রুয়ারি চালু করা হবে। জানা গেছে, শেয়ার লেনদেন নিষ্পত্তির সময় কমিয়ে আনতে স্টক এক্সচেঞ্জের অনুরোধে দুই বছর আগে একটি নির্দেশনা জারি করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি। কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী সিএসই এরই মধ্যেই লেনদেন নিষ্পত্তির সময়সীমা একদিন কমিয়ে এনেছে। তবে ৪০টি ডিলার অ্যাকাউন্ট ও ১৪টি সদস্য প্রতিষ্ঠানের অসহযোগিতার কারণে ডিএসইতে লেনদেন নিষ্পত্তির সময় কমিয়ে আনায় বাধা হয়ে দাঁড়ায়। শেষ পর্যন্ত ওই সব প্রতিষ্ঠান ইটিএফ সুবিধার আওতায় আসায় শেয়ার লেনদেন নিষ্পত্তির সময় আগের চারদিনের পরিবর্তে তিনদিনে (টি-২) সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত নেয় ডিএসই। টি-প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন হলে ‘এ’, ‘বি’ ও ‘এন’ ক্যাটিগরির শেয়ারের লেনদেন তিনদিনের পরিবর্তে দুদিনে নিষ্পত্তি হবে। বর্তমানে শেয়ার কেনার তিনদিন পর তা ক্রেতার বিও হিসেবে আসে। চতুর্থ কার্যদিবসে তা বিক্রি করা যায়।