‘ট্যাক্সের বিনিময়ে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হয়’

প্রকাশ:| বুধবার, ১৩ এপ্রিল , ২০১৬ সময় ০৮:৪০ অপরাহ্ণ

ট্যাক্স

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন ১৩ এপ্রিল বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বিভাগীয় ও শাখা প্রধানদের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে মেয়র বিভাগীয় প্রধান ও শাখা প্রধানদের নিকট থেকে তাদের উপর অর্পিত দায়িত্বের বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত অবহিত হন। এ সময় মেয়র বলেন, নগরবাসীর ট্যাক্সের বিনিময়ে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হয়। শতভাগ সেবার জন্যই নাগরিকগণ পৌরকর পরিশোধ করে থাকে। সুতরাং সেবা বিতরণে কোন ধরনের ব্যতয় কাম্য নয়। মেয়র জাইকার উন্নয়ন সহ থোক ও এডিপি’র চলমান উন্নয়ন কাজ গতিশীল করা, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মানসম্মত কাজ বুঝে নেয়া, রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি করা, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবাকে নগরবাসীর দোড়গোড়ায় পৌছে দেয়া, নগরীর অলিগলি, রাজপথ শতভাগ আলোকিত করা, বর্জ্য ব্যবস্থাপনাকে আরো স্বচ্ছ করা, ডোর টু ডোর বর্জ্য সংগ্রহের কার্যক্রমের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা, জায়গা-সম্পত্তি সমূহ সুনির্দিষ্টকরণ করে সাইন বোর্ড সেঁটে দেয়া, আয়বর্ধক প্রকল্প গ্রহন করা, হিসাব সংরক্ষন কার্যক্রমে স্বচ্ছতা আনায়ন সহ প্রতিটি বিভাগ ও শাখার কর্মকান্ড স্বচ্ছ ও গতিশীল করার দিক নির্দেশনা দেন। মেয়র সাফ জানিয়ে দেন সেবার ক্ষেত্রে দীর্ঘসুত্রিতা, গাফিলতি ও অনিয়মকে পরিহার করে যার যার দায়িত্ব ও কর্তব্যকে ঈমানি দায়িত্ব মনে করে শতভাগ পালন করতে হবে। বৈঠকে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ শফিউল আলম, সচিব মো. আবুল হোসেন, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা মিসেস নাজিয়া শিরিন, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্ণেল মহিউদ্দিন আহমদ, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মোহাম্মদ মঞ্জুরুল ইসলাম, প্রধান হিসাব রক্ষন কর্মকর্তা মো. সাইফুদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ সফিকুল মন্নান সিদ্দিকী, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম মানিক, মো. মাহফুজুল হক, স্থপতি এ কে এম রেজাউল করিম, নির্বাহী প্রকৌশলী মনিরুল হুদা, আবু ছালেহ, কামরুল ইসলাম, জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম, শিক্ষা কর্মকর্তা সাইফুর রহমান, পুল কর্মকর্তা সুদীপ বসাক, পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদ আলমসহ বিভিন্ন বিভাগ ও শাখা প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।