টোলপ্লাজায় পুলিশের এএসপির তাণ্ডব,

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শুক্রবার, ৩ আগস্ট , ২০১৮ সময় ১১:৩০ অপরাহ্ণ

কর্ণফুলী শাহ আমানত সেতুর টোলপ্লাজায় ভাংচুর ও টোলপ্লাজার কর্মকতা-কর্মচারীদের মারধেরর অভিযোগ উঠেছে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের এক সহকারী পুলিশ সুপারের (এএসপি) বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (০৩ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে মইজ্জারটেক টোলপ্লাজায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত পু্লিশ কর্মকতা হলেন- জেলা পুলিশের মিরসরাই সার্কেলের সহকারী পু্লিশ সুপার (এএসপি) মশিয়ার রহমান। এ ঘটনায় তাকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে।

কর্ণফুলী শাহ আমানত সেতুর ইজারাদার প্রতিষ্ঠানের ইনচার্জ অপূর্ব শাহা বলেন, মিরসরাই সার্কেলের সহকারী পু্লিশ সুপার মশিয়ার রহমান তার গাড়ি নিয়ে চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারের দিকে যাচ্ছিলেন। তিনি সাদা পোশাকে ছিলেন। দুইটি বুথে টোল সংগ্রহ করছিলেন সোহাগ ও ফয়সাল। কয়েকটি গাড়ির পরেই এএসপি মশিয়ারের গাড়ি ছিল। হঠাৎ গাড়ি থেকে নেমে এমে তিনি বুথের গ্লাস ভাঙা শুরু করেন। পরে বুথ থেকে বের করে সোহাগ ও ফয়সালকে মারধর করেন। তাদের বাঁচাতে গেলে সাদ্দাম হোসেন নামে আরও একজনকে মারধর করেন এএসপি মশিয়ার। পরে তিনি তার গাড়ির সামনে থাকা অন্যান্য গাড়িগুলো টোলগ্রহণ ছাড়া ছেড়ে দিতে বাধ্য করেন ও তিনিও চলে যান।

অপূর্ব শাহা বলেন, এএসপি মশিয়ার মাতাল অবস্থায় ছিলেন বলে মনে হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে এএসপি মশিয়ার রহমানের সরকারি মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করলেও তাকে পাওয়া যায়নি। প্রথমে রিং পড়লেও পরে আবার কল দিলে নাম্বার বন্ধ পাওয়া যায়।

কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) সৈয়দুল মোস্তফা বলেন, টোলপ্লাজায় ভাংচুর ও কর্মীদের মারধরের বিষয়টি শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনা বলেন, এএসপি মশিয়ার রহমানের বিষয়টি শুনেছি। তাৎক্ষণিক তাকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে পু্লিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে।

নুরেআলম মিনা বলেন, মশিয়ার রহমান মিরসরাই থেকে কেন কর্ণফুলী আসছেন বিষয়টি জানি না। তিনি আমাদের জানাননি। তার ব্যাপারে পুলিশ সদর দফতরে জানানো হয়েছে। সদর দফতর ব্যবস্থা নেবে।