টেকনাফের শীর্ষ সন্ত্রাসী কামাল ধরা ছোঁয়ার বাইরে

প্রকাশ:| সোমবার, ৫ অক্টোবর , ২০১৫ সময় ০৭:৩৫ অপরাহ্ণ

কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলার বহু মামলার আসামী শীর্ষ সন্ত্রাসী কামাল এখনো আটক হয়নি বরং এই কামাল বাহিনীর অত্যাচারে গরীব, নিরীহ ও অসহায় লোকজন অতিষ্ঠ হযে় উঠেছে। সে প্রতিনিয়ত চাঁদাবাজি, ছিনতাই, ধর্ষণ, সম্পত্তি দখল, ইয়াবা ব্যবসা বীরদর্পে চলিযে় যাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, টেকনাফ উপজেলার নাইট্যংপাড়ার সৈয়দ মাষ্টারের ছেলে শীর্ষ সন্ত্রাসী কামাল প্রকাশ্যে অবৈধ অস্ত্র নিযে় দীর্ঘদিন যাবত সাধারণ মানুষের কাছ থেকে চাঁদাবাজী ও সম্পত্তি দখল এবং সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিযে় আসছিল। তার অত্যাচারে অতিষ্ট হযে় এলাকাবাসীর পক্ষে জনৈক মোঃ হোছন বাদী হযে় টেকনাফ থানায় গত ১১ সেপ্টেম্বর-২০১৫ইং তারিখ ১৬০/১৫ নং সাধারণ ডাযে়রী লিপিবদ্ধ করেন।

ফলে ওই সন্ত্রাসী কামাল ক্ষিপ্ত হযে় আরো বেপরোয়া হযে় উঠে এবং এলাকাবাসীর উপর তার বাহিনীর অত্যাচারের মাত্রা বাডি়যে় দেয়। এরই প্রেক্ষিতে পুনরায় গত ৩০ সেপ্টেম্বর টেকনাফ থানায় আবদুর রশিদ বাদী হযে় ওই সন্ত্রাসী কামাল গং এর বিরুদ্ধে আরো একটি সাধারণ ডাযে়রী লিপিবদ্ধ করেন। যার নম্বর ১১৯/১৫।
সন্ত্রাসী কামালের অত্যাচারের ভুক্তভুগী জেলে আবদুর রহমান জানান, গত কযে়ক দিন আগে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্রের ভয় দেখিযে় নৌকা থেকে জাল কেটে মাছ কেডে় নিযে় যায় সন্ত্রাসী কামাল সহ তার বাহিনীর সদস্যরা। তিনি আরও জানান, সন্ত্রাসী কামালের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা সহ একাধিক ইয়াবা ও মানব পাচারের মামলা রযে়ছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই সন্ত্রাসী কামাল প্রশাসনের নাকের ঢগায় বসে সন্ত্রাসী ও ইয়াবা ব্যবসা দিব্যি চালিযে় যাচ্ছে। তার সন্ত্রাসী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে অদৃশ্য কারণে প্রশাসন এখনো পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।
টেকনাফ থানার অফিসার ইনচার্জ কবির আহমদ এ ব্যাপারে জানান, কামাল এর বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে অনেকে অভিযোগ করেছেন। আমরা তার বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।
এভাবে প্রকাশ্যে অস্ত্র সহ সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালালে সমাজের নিরীহ লোকজন তাদের হাতে জিম্মি হযে় পড়বে বলে মনে করছেন এলাকার সচেতন মহল। তাই দ্রুত এ সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে প্রযে়াজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করাও একান্ত প্রযে়াজন বলে মনে করছেন তারা।