টকশোগুলোয় যারা বিতর্ক করছেন তাদেরও মৌলিক শিক্ষার অভাব রয়েছে

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১১ জুলাই , ২০১৪ সময় ১১:১৩ অপরাহ্ণ

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, সমুদ্রে বাংলাদেশের অর্জন নিয়ে টকশোগুলোয় যারা বিতর্ক করছেন তাদেরও মৌলিক শিক্ষার অভাব রয়েছে। বাংলাদেশ যে সমুদ্রের বিশাল অংশ জয় করে নিয়েছে তা যে তারা বুঝতে পারেননি, সেটা তাদের ক্লাস ওয়ানের অংকও না বোঝার পরিচয় বহন করছে।

আজ শুক্রবার বিকেলে হোটেল লেকশোরে সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে গণতন্ত্র ও ভবিষ্যত বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, একাত্তরে যেমন রাজাকার ছিল, এখনও তাদের মতো দেশের বিরুদ্ধে কিছু ষড়যন্ত্রকারী রয়েছে। এই ষড়যন্ত্রকারীদের শিক্ষার দৌঁড় কতদূর আমরা তা ভালো করে জানি। কিন্তু ইদানীং তাদের পক্ষে যারা সাফাই গাইছেন তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতাও স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

প্রধানমন্ত্রীর এ উপদেষ্টা বলেন, দেশে ১৬ কোটি মানুষ বাস করেন, এদের মধ্যে ৯ কোটি ভোটার। যদি কোনো পরিবারের ১৬ ব্যক্তি কোনো বিষয়ে একমত হতে না পারেন, তবে ৯ কোটি মানুষ কোনো বিষয়ে যে একমত হবেন এমন কোনো কথা নেই, কিন্তু অধিকাংশ লোকের মতামত নিয়ে সরকার পরিচালনা করাই গণতন্ত্র।

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধ ও পঁচাত্তরের হত্যাকাণ্ড গণতান্ত্রিক ছিল না উল্লেখ করে জয় বলেন, আমরা স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি নিয়ে কথা বললেও দেশের রাজনীতিতে এখনও এমন একটি পক্ষ আছে যারা স্বাধীনতায়ই বিশ্বাস করে না। তারা এখনও মনেপ্রাণে পাকিস্তানের অংশ হয়ে যেতে চায়। যারা জিন্দাবাদের অনুসারী, তারা পাকিস্তানের এজেন্ট, যারা পাকিস্তানের এজেন্ট তাদের পাকিস্তানেই ফিরে যেতে হবে।

সভায় সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ এ আরাফাতের সঞ্চালায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আলী জাকের, শিক্ষাবিদ ড. এ কে আজাদ চৌধুরী, অর্থনীতিবিদ ড. আবুল বারকাত, সাংবাদিক গোলাম সারোয়ার, নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশিদ প্রমুখ।