জেলা প্রশাসক-মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নেতৃবৃন্দ সৌজন্য সাক্ষাত

প্রকাশ:| সোমবার, ২২ মে , ২০১৭ সময় ০৮:৩৫ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, চট্টগ্রাম জেলা ইউনিট কমান্ড ও চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডের উদ্যোগে নবাগত জেলা প্রশাসক মো: জিল্লুর রহমান চৌধুরীকে বরণ ও আলোচনা সভা জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে জেলা কমান্ডার এর মো: সাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে এ কে এম সরওয়ার কামাল এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়। জেলা কমান্ডার মো: সাহাব উদ্দিন উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন যে, অনেক প্রতিকূলতার মাঝেও জেলা ও মহানগর কমান্ডের বীর মুক্তিযোদ্ধারা জেলা প্রশাসক মো: জিল্লুর রহমান চৌধুরীর বরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছেন। আমরা মুক্তিযোদ্ধারা অত্যন্ত ভাগ্যবান চট্টগ্রাম জেলায় যে সমস্ত জেলা প্রশাসক ইতিমধ্যে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসনের দায়িত্ব নিয়েছিলেন উনারা অত্যন্ত মুক্তিযোদ্ধাবান্ধব ছিলেন। মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য উনাদের দরজা সবসময় উন্মুক্ত ছিল। যে কোন বিপদ আপদে মুক্তিযোদ্ধারা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে উপস্থিত হলে জেলা প্রশাসক আন্তরিকতার সাথে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে সমস্যা সমাধানে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। নবগত জেলা প্রশাসকও অতীতের জেলা প্রশাসকদের ন্যায় আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের সুখ দুঃখের সাথী হবেন। এটাই আমাদের প্রত্যাশা। জেলা কমান্ডার মো: সাহাব উদ্দিন তার বক্তব্যে আরও বলেন যে, শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের কবরগুলো অবহেলায় অযতেœ জেলা ও মহানগরের মুক্তিযোদ্ধাদের কবরগুলো সংরক্ষণ করার দাবি জানান। অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় এখনও চট্টগ্রামে একটি জাতীয় স্মৃতিসৌধও নির্মাণ করা সম্ভব হয়ে উঠেনি। বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন স্থানে বিশেষ করে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের কবর সংরক্ষণে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। মো: সাহাব উদ্দিন নবগত জেলা প্রশাসকের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে বলেন যে, আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি বর্তমান জেলা প্রশাসক মহোদয় জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশিত পথে চট্টগ্রামকে একটি উন্নত শহরে রূপান্তর করবেন। সাম্প্রতিক সময়ে জঙ্গীবাদ, সাম্প্রদায়িকতা, মাদকাসক্তি, আমাদের যুব সমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। এই বিষয়ে জেলা প্রশাসন অত্যন্ত কঠোরভাবে মাদক এবং সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কার্যক্রম অব্যাহত রাখবেন। মহানগর ইউনিট কমান্ডার তর বক্তব্যে বলেন যে, মু্িক্তযোদ্ধারা এখন প্রায় জীবন সায়াহ্নে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে চিকিৎসা নিতে আসলে মুিক্তযোদ্ধারা চিকিৎসা সহায়তা পায় না। এ ব্যাপারে তিনি জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। প্রশাসনের সাথে মুক্তিযোদ্ধাদের একটি গভীর আন্তরিক সম্পর্ক বরাবরের ন্যায় বিদ্যমান আছে। আশা করি বর্তমান জেলা প্রশাসকও বিষয়টি নিয়ে আন্তরিকভাবে সমাধান করবেন। নবগত জেলা প্রশাসক মুক্তিযোদ্ধাদেরকে আন্তরিকভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের বিপদে আপদে উনি সর্বাত্মক ভূমিকা পালন করবেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মুক্তিযোদ্ধারা যাতে পরিপূর্ণভাবে চিকিৎসা পায় সেজন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করবেন। জেলা প্রশাসক মহোদয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভিশন-২০২১ পরিপূর্ণভাবে বাস্তবায়নে প্রশাসন দৃঢ়ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। মুক্তিযোদ্ধারাও এই উন্নয়ন কর্মকান্ডের অংশীদার। উপজেলা প্রত্যন্ত অঞ্চলে গ্রামসমূহে সমাজ বিরোধী জঙ্গীদের বিরুদ্ধে সজাগ থাকার জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের আহ্বান জানান। জেলা প্রশাসক মহোদয় মুক্তিযোদ্ধাদের কবর সংরক্ষণ ও স্মৃতিসৌধ নির্মাণে কার্যকর ভূমিকা পালন করবেন বলে সবাইকে আশ্বস্থ করেন। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা কমান্ডের সাংগঠনিক কমান্ডার জামাল উল্লাহ, অর্থ কমান্ডার আবদুর রাজ্জাক, শিক্ষা ও পাঠগার সম্পাদক বোরহান উদ্দিন, দপ্তর কমান্ডার আলাউদ্দিন, শ্রম ও জনশক্তি কমান্ডার রশিদ কামাল ছিদ্দিকী, ক্রীড়া কমান্ডার বদিউজ্জামান, মীরসরাই উপজেলা কমান্ডার কবির আহমদ, সাতকানিয়া উপজেলা কমান্ডার আবু তাহের, হাটহাজারী উপজেলা কমান্ডার নুরুল আলম, চন্দনাইশ উপজেলা কমান্ডার জাফর আলী হিরু, ফটিকছড়ি ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার শামসুল আলম, যুদ্ধকালীন কমান্ডার তপন দাশ, বীর মুক্তিযোদ্ধা দেব প্রসাদ দোলদার, মহানগর সাংগঠনিক কমান্ডার পান্টু লাল সাহা, প্রচার কমান্ডার সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, সহকারী কমান্ডার প্রকল্প জনাব খোরশেদ আলম, কোতোয়ালী থানা কমান্ডার সৌরেন্দ্র নাথ সেন, চাঁন্দগাও থানা কমান্ডার কুতুব উদ্দিন চৌধুরী, বাকলিয়া থানা কমান্ডার মো; আলী হোসেন, পাঁচলাইশ থানা কমান্ডার আহমদ মিয়া, ডবলমুরিং থানা কমান্ডার দোস্ত মোহাম্মদ, পাহাড়তলী থানা ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার জাফর আহমদ, হালিশহর থানা কমান্ডার মো: ইউনুস, বন্দর থানা কমান্ডার শামসুল আলম, কোতোয়ালী থানা কমান্ডার এমরান গাজী, খুলশী থানা কমান্ডার মো: ইউসুফ, আকবর শাহ থানা কমান্ডার নূর মোহাম্মদ নূর উদ্দিন, ইপিজেড থানা কমান্ডার আবুল কাশেম, সদরঘাট থানা কমান্ডার জাহাঙ্গীর আলম, বীর মুক্তিযোদ্ধআ সৈয়দ আহমদ, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মো: ইসহাক প্রমুখ।


আরোও সংবাদ