জেদ্দা এয়ারপোর্ট কৃষক লীগ নবগঠিত আঞ্চলিক কমিটির অভিষেক

প্রকাশ:| শনিবার, ১৭ ডিসেম্বর , ২০১৬ সময় ১০:০৫ অপরাহ্ণ

সৌদি আরবের জেদ্দাস্থ সিপিএমসি কাম্পে জেদ্দা এয়ারপোর্ট বাংলাদেশ কৃষক লীগ উদ্যোগে আয়োজিত মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন ও জেদ্দা এয়ারপোর্ট কৃষক লীগ নবগঠিত আঞ্চলিক কমিটির অভিষেক হয়েছে ।
মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন ও এয়ারপোর্ট কৃষক লীগ আঞ্চলিক কমিটির আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেদ্দা এয়ারপোর্ট বাংলাদেশ কৃষক লীগ নবগঠিত কমিটির সভাপতি মিজানুর রহমান এৱ সভাপতিত্বে আতিকুজ্জমান উজ্জ্বল ও আব্দুল্লাহ আল মামুন এৱ সঞ্চালনায় অনুষ্টানের প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগ সৌদিআরব পশ্চিমাঞ্চল এর প্রধান পৃষ্ঠপোষক পৌকশলী রফিকুজ্জামান, প্রধান উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগ নবগঠিত সৌদিআরব পশ্চিমাঞ্চল এর সভাপতি গিয়াস উদ্দীন মাহমুদ। বিশেষ অতিথিগণের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হোসেন মোহাম্মদ নাহিদ, সিনিয়র সহ সভাপতি আজিজুর রহমান দিলু, সহ সভাপতি প্রিন্স মাহমুদ, পৌকশলী আশরাফ উদ্দিন, মাহবুবুল আলম শামিম।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্তিত থেকে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষক লীগ সৌদিআরব পশ্চিমাঞ্চল এর সাংগঠনিক সম্পাদক সাহাদাৎ হোসেন মিয়া, শরিফ মিয়া, কায়ুম, গাজী, রুবেল মিয়া, রাসেল মিয়া সহ প্রমুখ।

প্রধান উদ্বোধক এর বক্তব্যে গিয়াস উদ্দীন মাহমুদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশ হতো না, বঙ্গবন্ধু ৭ ই মার্চের ভাষণ, যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে প্রস্তুত হও, বঙ্গবন্ধুর ঝালাময়ী সেই ভাষণ সেই দিন ঘুমন্ত বাঙালিদের সাহস যোগীয়েছিল, আমাদের এই কষ্টার্জিত স্বাধীনতা। মাননীয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বে খাদ্য, চিকিৎসা, দারিদ্র্য বিমোচন, নারী উন্নয়ন, সামাজিক অগ্রগতি প্রভূত খাতে বাংলাদেশের ব্যাপক উন্নয়ন দেখে যখন অত্যন্ত প্রসংসা করেন তখনি বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তে প্রতিটি বাঙ্গালী কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করে এসবই সম্ভব হয়েছে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘোষণা ও দিক নির্দেশনায় রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে বিজয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভ করায়।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন স্বাধীনতা বিরোধী শত্রুরা আমাদের কষ্টার্জিত স্বাধীনতা মেনে নিতে পারছে না। শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে তারা শহীদ মিনার ও জাতীয় স্মৃতিসৌধে যেতে চায় না। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার সজীব ওয়াজেদ জয়ের নেতৃত্বে দেশ অর্থনৈতিকভাবে স্বনির্ভর হয়ে পরিকল্পিতভাবে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাবে এবং জাতির জনকের স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবে।