জেদ্দা ইন্টারন্যাশনাল ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল

প্রকাশ:| শনিবার, ১৪ জানুয়ারি , ২০১৭ সময় ১১:৩৫ অপরাহ্ণ

সুদীর্ঘ ২০ বছর যাবত সৌদিআরবের জেদ্দায় ঐতিহ্যবাহী ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল জেদ্দা ইন্টারন্যাশনাল ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল। স্কুলটি অত্যন্ত সুনামের সাথে ব্রিটিশ কারিকোলামে পরিচালিত হয়ে আসছে। জিসিএসই ও এ লেভেল এওয়ার্ড উপলক্ষ্যে জেদ্দাস্থ ইন্টারন্যশনাল স্কুল ইংলিশ মিডিয়াম এর মাঠ প্রাঙ্গণে আয়োজিত ১৬ তম জিসিএসই ও এ লেভেল এওয়ার্ড ২০১৬ প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে গতকাল ১৩ই জানুয়ারী শুক্রবার। এতে প্রায় ৮৩জন শিক্ষার্থীকে জিসিএসই ও এ লেভেল পরিক্ষায় কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলের জন্য বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। এসময় তিন শতাধিক অভিভাবক, শিক্ষার্থী, কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
স্কুলের প্রিন্সিপাল ড. আব্দুল্লাহ বাকি এর সভাপতিত্বে এবং সিনিয়র ভাইস প্রিন্সিপাল আব্দুল কায়ুম ও স্কুলের মাহাদিয়া আহসান ও হামিম সরোয়ার এর যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে পবিত্র কোরআন থেকে অর্থপূর্ণ তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু।
উক্ত অনুষ্ঠানে চীফগেষ্ট ছিলেন রিয়াদ দূতাবাসের ডেপুটি চিফ অফ মিশন ও ভারপ্রাপ্ত জেদ্দাস্থবাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল ড. নজরুল ইসলাম।বিশেষ অতিথিগণের মধ্য উপস্থিত ছিলেন জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কাউন্সিলর লেবার( স্থানীয়) আলতাফ হোসেন, ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ইংলিশ মিডিয়াম শাখার চেয়ারম্যান কাজী নিয়ামুল বশির, ভাইস-চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দীন মাহমুদ, ডিরেক্টর ডাক্তার মাহবুল্লাহ,  ডিরেক্টর ইলিয়াছ, ডিরেক্টর অফ ইডুকেশন আতিকুল ইসলাম, ডিরেক্টর অফ ইকোনমি মুসা খান প্রমুখ।
এবছর আইজিসিএসই ও এ লেভেল ৫৫ জন ছেলে ও ৭০ জন্য মেয়ে অংশ গ্রহন করে ৭ জন গোল্ডেন পদক লাভ করেন তারমধ্যে চার জন ছেলে ও  তিন জন মেয়ে। পাঁচটি সাবজেক্টে এএস লেভেলে কৃতিত্বের সাথে সৌদিআরবের প্রথম স্থান লাভ করেন জিহাদ মোহাম্মদ। চারটি এএস সাবজেক্টে নিয়ে সৌদিআরবের দ্বিতীয়ত স্থান লাভ করেন ওয়াফি সরকার। রাহা মনি এলেভেলে একাউন্টিং এলেভেলে সৌদিআরবের প্রথম স্থান অধিকার লাভ করেন, বায়ান রহমান ফুডেন্ট নিউট্রিয়েশনে আইজিসিএসই এ প্রথম ও সোমাইয়া ইসলাম বেষ্ট এক্রস চারটি সাবজেক্টে এলেভেলে সৌদিআরবের দ্বিতীয়ত স্থান লাভ করেন।এছাড়াও সোমাইয়া ইসলাম ও তানভীর মেহতাব চারটি সাবজেক্টে এলেভেলে এষ্টার পেয়ে গোল্ড মেডেল অর্জন করেন।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়ায় আরো কিভাবে ভাল করা যায় এবং তাদের উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে উপস্থিত অতিথিগনের মধ্যে প্রেজেন্টেশন প্রদান করেন অনারেবল গেষ্ট ড. নজরুল ইসলাম, কাউন্সিলর আলতাফ হোসেন, গিয়াস উদ্দীন মাহমুদ এন্ড মাহবুবুল্লাহ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে অনারেবল গেষ্ট ভারপ্রাপ্ত কনসাল জেনারেল ড. নজরুল ইসলাম বলেন, সৌদিআরবে বাংলাদেশী প্রবাসী ছেলে মেয়েদের শিক্ষার মান শিক্ষার উন্নয়নের জন্য দীর্ঘদিন কাজ করে যাচ্ছে জেদ্দা ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ইংলিশ মিডিয়াম শাখা। এবং এই স্কুলটির ছাত্র ছাত্রী বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রশংসিত হয়ে বাংলাদেশের সোনাম অর্জন করে। তিনি স্কুলের আরো ভূয়শী প্রশংসা করেন এবং স্কুলের সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কাউন্সিলর আলতাফ হোসেন স্কুলটির অতীতের কার্মকান্ডের প্রশংসা করে বলেন, বর্তমান সৌদিআরব প্রবাসী কমিউনিটির ছেলে মেয়েদের শিক্ষার স্বার্থে স্কুলটি অগ্রনী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।
স্কুলের ভাইস-চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দীন মাহমুদ বলেন, ১৯৯৩ সালে এই স্কুলটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০০০ সালের প্রথম দিকে জিসিএসই ও এ লেভেল এওয়ার্ড এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করি। এই স্কুলের  পরিচালনা পরিষদের অন্যতম একজন হতে পেরে এবং আমাকে সম্মানিত করায় বর্তমান কমিটি ও অভিভাবকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। তিনি ভবিষ্যতে এই স্কুলের শিক্ষার মান উন্নয়নে আরো বেশি অবদান রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
সভায় স্কুল পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী নিয়ামুল বশির তার বক্তব্যে স্কুলের সামগ্রিক ব্রিফিং প্রদান করে বলেন, এই স্কুলটি হচ্ছে হচ্ছে সৌদিআরবের জেদ্দার বৃহত্তর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্কুলের আইজিসিএসই ও এ লেভেল এওয়ার্ড যা প্রতিবারই তার কমিটি সার্বিক সহযোগিতায় তারই নেতৃত্বে সুসম্পাদিত হয়েছে। যার জন্য তিনি গর্ববোধ করেন। তিনি নির্বিক কন্ঠে কমিউনিটির স্বার্থে বলেন, স্কুলের এই কঠিন সময়ে শিক্ষামূলক জিসিএসই ও এ লেভেল এওয়ার্ড ২০১৬ এ মহান অনুষ্ঠান করে গভর্নিং বডি আবারো প্রমান করল তারা বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ইংলিশ মিডিয়াম শাখা তথা বাংলাদেশী কমিউনিটির জন্য কাজ করে আসছে, করছে এবং ভবিষ্যতে ও এধারা অব্যাহত থাকবে ইনশাল্লাহ।
উপস্থিত সুধিবৃন্দ, এওয়ার্ড প্রাপ্ত নতুন প্রজন্ম, মা-বাবা এবং কমিউনিটির সর্বস্তরের সহযোগিতার আহবান জানিয়ে তিনি আরও বলেন, শিক্ষাই হচ্ছে জাতির মূলমন্ত্র, আর আমাদেরই সন্তান, আমাদের কমিউনিটি, আমাদেরই ভবিষ্যত, সেহেতু প্রত্যেকেই তাঁর স্বস্ব স্থান থেকে স্কুল কমিটি এডুকেশনের জন্য ভূমিকা রাখার লক্ষ্যে স্কুলের গভর্নর হয়ে ছেলে মেয়েদেরকে শিক্ষায় সুশিক্ষিত করে একজন বাংলাদেশী সু-নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার আকুল আবেদন জানান।
সভায় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় আরো বেশি উৎসাহিত করতে এধরনের উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে এওয়ার্ড প্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে সার্টিফিকেট, ক্রেষ্ট এবং এওয়ার্ড গোল্ড মেডেল তুলেদেন আগত অতিথিবৃন্দ।