জেএমবি নেতা ‘রাজীব গান্ধীর’ কাছ থেকে মিলেছে তথ্য : পিবিআই

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বুধবার, ৮ আগস্ট , ২০১৮ সময় ০৮:৫৬ অপরাহ্ণ

গুলশান হামলার অন্যতম ‘পরিকল্পনাকারী’ জেএমবি নেতা জাহাঙ্গীর আলম ওরফে ‘রাজীব গান্ধীকে’ চট্টগ্রামের আকবর শাহ থানার একটি মামলায় রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। দুইদিন রিমান্ড শেষে তাকে বুধবার চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আল-ইমরান খানের আদালতে হাজির করা হয়।

পিবিআই চট্টগ্রাম মেট্রোর পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা বলেন, রাজীব গান্ধীর কাছ থেকে কারাবন্দি জেএমবি’র সেকেন্ড-ইন-কমান্ডার বুলবুল আহমেদ সরকার ওরফে ফুয়াদ ও বগুড়ার শেরপুরে গ্রেনেড বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে নিহত জেএমবি কমান্ডার মো. ফারদিন ওরফে নোমানের ব্যাপারে কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। এসব তথ্য আমরা যাচাই-বাছাই করছি।

এর আগে গত ২০১৫ সালের ২৩ মার্চ চট্টগ্রামের নিউ মনসুরাবাদ বাগানবাড়ি সংলগ্ন শাপলা মোড়ে রেললাইনের কাছের একটি বাসা থেকে জেএমবি নেতা এরশাদকে গ্রেফতার করে আকবর শাহ থানা পুলিশ। তখন ওই বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ গ্রেনেড তৈরির সরঞ্জাম, গানপাউডার, বোমাসদৃশ বস্তু ও জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারের পর ২০১৫ সালের ২৯ মার্চ চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আদালতে জবানবন্দি দেন এরশাদ। সেই জবানবন্দিতে রাজীব গান্ধী, রাইসুল ইসলাম ওরফে ফারদিন ও বুলবুল আহমেদ ওরফে ফুয়াদের নাম ও বিভিন্ন তথ্য দিয়েছিলেন। তবে তাদের বিষয়ে কোনো তদন্ত ছাড়াই ২০১৫ সালের মে মাসে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ।

পরবর্তীতে বিভিন্ন জঙ্গি তৎপরতায় ওই ব্যক্তিদের সম্পৃক্ততার তথ্য পাওয়া যায়। এ প্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে গত বছরের ২৫ জুলাই মামলাটির অভিযোগপত্র গ্রহণ না করে অধিকতর তদন্ত করতে নির্দেশ দেয় আদালত। পরে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের পশ্চিম রাঘবপুর গ্রামের ওসমান আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধীকে গত বছরের ১৪ জানুয়ারি ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি উত্তরবঙ্গের সামরিক শাখার কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বলে পুলিশ তখন জানায়।