জিএসপি বাতিলে ‘জোরাল’ সুপারিশ

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৭ জুন , ২০১৩ সময় ১১:০১ পূর্বাহ্ণ

যুক্তরাষ্ট্রে পণ্য রফতানিতে জেনারেলাইযড সিস্টেম অব প্রেফারেন্সেস (জিএসপি) থেকে বাংলাদেশকে বাদ দিতেus senate comm_4738_0.pngজোরালসুপারিশ করেছেন মার্কিন সিনেটর রবার্ট মেনেনদেয

যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানীর ওয়াশিংটন ডিসিতে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকালে (বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাতে) সিনেটের পররাষ্ট্র বিষয়ক কমিটির এক শুনানিতে একথা বলেন কমিটির চেয়ারম্যান মেনেনদেয

 শুনানিতে কমিটি চেয়ারম্যানের দেয়া বক্তব্য কমিটির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে; যার ভিত্তিতে খবরও প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা এপি

 শুনানিতে ডেমোক্র্যাটদলীয় সিনেটর কমিটি চেয়ারম্বযান মেনেনদেয বলেন, “বাংলাদেশের জিএসপি সুবিধা বাতিলের বিষয়টি প্রশাসনের গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা উচিৎ।

 এপ্রিলে রানা প্লাজা ধসে ১১শর বেশি পোশাককর্মীর প্রাণহানির পর থেকে জিএসপি বহাল রাখার ক্ষেত্রে শ্রম পরিবেশকে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় বিবেচনা করছে যুক্তরাষ্ট্র। দুর্ঘটনার পর ঢাকায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজীনা বলেছিলেন, এই ঘটনা জিএসপি শুনানিতে প্রভাব ফেলবে

 বাংলাদেশ যেসব পণ্যে জিএসপি সুবিধা পায় তার মধ্যে পোশাক খাত নেই।

 সপ্তাহখানেক আগে বাংলাদেশ সফর করে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে একই কথা বলেছিলেন মার্কিন কংগ্রেসের শিক্ষা শ্রম বিষয়ক কমিটির প্রধান জর্জ মিলার

 বৃহস্পতিবারের শুনানিতে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত একরামুল কাদের উপস্থিত ছিলেন। কমিটির চেয়ারম্যান মেনেনদেয তার বক্তব্যে রাষ্ট্রদূতকে স্বাগত জানান।

 বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোর বেশিরভাগ ঝুঁকিতে থাকা নিয়ে কয়েকদিন আগে বৃটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনের প্রসঙ্গও টেনে আনেন মেনেনদেয। বুয়েটের একদল শিক্ষকের করা একটি জরিপের ভিত্তিতে গার্ডিয়ান ওই প্রতিবেদন প্রকাশ করে

 জিএসপি বাতিল হলে বাংলাদেশের রফতানির একটি ছোটো অংশে এর প্রভাব পড়বে মন্তব্য করে সিনেট কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, “যুক্তরাষ্ট্র যে শ্রমিক সুরক্ষা এবং শ্রম পরিবেশকে যথেষ্ঠ গুরুত্ব দেয় তার একটি সংকেত জিএসপি বাতিলের মাধ্যমে পাবে বাংলাদেশ।

 [বাংলাদেশের পোশাক খাত নিয়ে] বেশ কিছু লিখিতমতামতপেয়েছেন জানিয়ে সেগুলোকে শুনানির নথিতে রাখার কথা জানান মেনেনদেয

 বৃহস্পতিবারের শুনানিতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, শ্রম মন্ত্রণালয়, যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য বিষয়ক কার্যালয়ের প্রতিনিধি এবং সেদেশের খুচরা বিক্রেতা পোশাক প্রস্তুতকারকদের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন