জাতীয় বাজেটে শিক্ষা খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দের দাবী

প্রকাশ:| রবিবার, ২১ মে , ২০১৭ সময় ১০:৩৮ অপরাহ্ণ

 

আসন্ন জাতীয় বাজেটে শিক্ষা খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দের দাবীতে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মানববন্ধন ২১ মে রবিবার চবি ক্যাম্পাসে সংগঠনের সভাপতি ছাত্রনেতা মুহাম্মদ দিদারুল ইসলাম কাদেরীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ ইদ্রিসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামী ফ্রন্টের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব জননেতা আলহাজ্ব স.উ.ম আব্দুস সামাদ।
প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা এইচ এম শহিদুল্লাহ।
বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকারের ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রধান হাতিয়ার হচ্ছে একটি সুশিক্ষিত জনগোষ্ঠী । শিক্ষিত নাগরিক দেশের সম্পদ, দেশ উন্নয়নের ধারক। শিক্ষার ক্ষেত্রে চাহিদামত সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে পারলেই শিক্ষা অর্জনের দিকে সাধারণ মানুষ ধাবিত হবে। প্রধান অতিথি বলেন, দেশে উচ্চশিক্ষা কেন্দ্রের যথেষ্ট অভাব আর প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের মাত্রাতিরিক্ত টিউশন ফি’র দরুন অনেক মেধাবীর শিক্ষা জীবন উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শেষ হয়ে যায়। আসন্ন জাতীয় বাজেটে শিক্ষা খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দের পাশাপাশি দেশের সবকটি জেলায় অন্তত একটি করে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবী জানান আব্দুস সামাদ। প্রধান বক্তা বলেন শিক্ষা খাতকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিলেই দেশ সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাবে। শিক্ষাকে অধিক লাভ জনক খাত উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, সরকার আগামী বাজেটে শিক্ষা খাতেই সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেবে বলে আমাদের বিশ্বাস। বিতর্কিত কওমী সনদকে মাস্টার্সের মান দেওয়ায় কঠোর সমালোচনা করেন বক্তারা। তাঁরা বলেন, কওমী সনদের শর্তহীন স্বীকৃতি দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে বহির্বিশ্বে প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলেছে। মানববন্ধন থেকে রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখার জোর দাবী জানানো হয়।
উক্ত মানববন্ধনে সাধারণ ছাত্রদের পাশাপাশি নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মুহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম চৌধুরী, সাইফুল ইসলাম নেছার, মঞ্জুরুল ইসলাম, মোস্তাকিম পাঠান, মুহাম্মদ ছালামত রেজা, মুরাদ হোসেন, আব্দুল করিম সহ প্রমুখ।