জাতি গড়ার শ্রেষ্ট কারিগর এ কে মাহমুদুল হক

প্রকাশ:| রবিবার, ৮ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ১০:০২ অপরাহ্ণ

চিটাগাং আইডিয়াল ট্রাষ্টের উদ্যোগে সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তারা

বরণ্য শিক্ষাবিদ, জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত ও শ্রেষ্ট প্রধান শিক্ষক, চিটাগাং আইডিয়াল ট্রাষ্টের চেয়ারম্যান এ কে মাহমুদুল হককে চিটাগাং আইডিয়াল ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ অদ্য ৮ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১১টায় চিটাগাং আইডিয়াল হাই স্কুল মিলনায়তনে এক বর্নাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্মারক ও সম্মাননা প্রদান করা হয়। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত সম্মাননা স্মারক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চিটাগাং আইডিয়াল হাই স্কুল ও কলেজের পরিচালনা কমিটির সভাপতি প্রকৌশলী মনজারে খোরশেদ আলম। প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা: মাসুদ আহমদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন ২১নং জামালখান ওয়ার্ড কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন। উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে দিকনির্দেশনা মূলক বক্তব্য প্রদান করেন সংবর্ধিত অতিথি বরণ্য শিক্ষাবিদ এ কে মাহমুদুল হক ও তাঁর সহধর্মীনী দিল আফরোজ খানম। এ ছাড়াও আইডিয়াল শিল্প গোষ্টি দেশাত্ববোধন গত পরিবেশন করেন।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইডিয়াল ট্রাষ্টের ম্যানেজিং ট্রাস্টি ডা: এ কে এম ফজলুল হক। বক্তব্য রাখেন মাসিক দ্বীন দুনিয়ার নির্বাহী সম্পাদক মোহাম্মদ জাফরুল্লাহ, আইডিয়াল ট্রাস্টের ট্রাস্টি ও প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক আমেনা শাহীন, ট্রাস্টি প্রকৌশলী মুমিনুল হক, প্রকৌশলী মিজানুর রহমান, হুমাযূন কবীর পাটোয়ারী, ডা: ফরিদুল আলম, চিটাগাং আইডিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ ও প্রধান নির্বাহী প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ইউসুফ, হাই স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শাহীদা নাসরিন শিউলী, প্রভাষক মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, সহকারী প্রধান শিক্ষক সেলিনা আক্তার হেনা, ইংরেজী বিভাগের শিক্ষক জমির উদ্দিন, ছাত্র শাহরিয়াজ হোসেন, জিনান। সংগীত ও মানপত্র পাঠ করেন পরিবেশন করেন সেলিনা আক্তার মুন্নি প্রমুখ।
এ কে মাহমুদুল হকের স্যারের ৬৫ বছর শিক্ষাজীবনের আলোচনা করতে গিয়ে অনেকে আবেগ আপ্লুত হয়ে বলেন, স্যারের এমন কোন দিক নেই যে শিক্ষা ক্ষেত্রে তিনি সফল হয়নি। ছাত্রজীবন থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত কৃতিত্বে অবদান। কর্মজীবনে স্যারের সহচর্চ পেয়ে আজ হাজারো শিক্ষার্থী নিজ নিজ অবস্থানে প্রতিষ্ঠিত। তিনি একজন শুধু বাংলা শিক্ষিত তা নয় তিনি একজন ভাল ও দক্ষ আলেমও বটে। দেশপ্রেমিক ও আদর্শ এবং নৈতিকতা সম্পন্ন শিক্ষা প্রদানে ও শিক্ষার্থী তৈরীতে এ কে মাহমুদুল হক জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।
বক্তারা আরো বলেন, এ কে মাহমুদুল হক ও তাঁর সহধর্মীনী দিল আফরোজ খামন দু জনেই কিন্তু সমাজের জন্য আইডল। শিক্ষা বিস্তারে যেমন অবদান রেখেছে ঠিক তেমনি পরিবার ও আত্মীয় স্বজনদেরকেও আদর্শ নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। একজন আদর্শ নীতিবান শিক্ষকের যতগুলো গুণ থাকা দরকার সবই ছিল এ কে মাহমুদল হক স্যারের কাছে। স্যারের স্বপ্ন ছিল চিটাগাং আইডিয়াল স্কুল ও কলেজ শুধু চট্টগ্রামে নয় সারাদেশের মধ্যে শ্রেষ্ট ও নামী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হবে। সভাপতির বক্তব্যে প্রকৌশলী মনজারে খোরশেদ আলম বলেন, আজ এ কে মাহমুদুল হক স্যারের মতো একজন বরণ্য শিক্ষাবিদকে সংবর্ধনা ও সম্মানা স্মারক দিতে পেরে আইডিয়াল ট্রাস্ট গর্বিত ও আনন্দিত। আইডিয়াল ট্রাষ্ট এর মূল কারিগর হচ্ছে এ কে মাহমুদুল হক স্যার। স্যারের পদচারনায় আমরা এতটুকু এসেছি। ভবিষ্যতেও স্যারের সার্বিক সহযোগিতা নিয়ে আমরা এগিয়ে যাবো। পরিশেষে স্যারের দীর্ঘায়ু ও সুন্দর জীবন কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করেন সিনিয়র শিক্ষক এস এম এম শিবলী নোমানী। সংবর্ধিত অতিথি এ কে মাহমুদুল হক স্যারকে ক্রেষ্ট, পুরস্কার তুলে দেন এবং পরিবারের সকলের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।

 

 

 


আরোও সংবাদ