খালেদা জিয়াকে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনের ফোন

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৩ আগস্ট , ২০১৩ সময় ১০:১৫ অপরাহ্ণ

kaleda ban ki monজাতিসংঘ সব দলের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেখতে চায় বলে খালেদা জিয়াকে জানিয়েছেন মহাসচিব বান কি মুন। সঙ্কট নিরসনে সংলাপে বসার তাগিদ দেন তিনি। খালেদা জিয়াও জাতিসংঘ মহাসচিবকে বলেছেন, নির্দলীয় সরকার ছাড়া ১৮ দলীয় জোট নির্বাচনে যাবেন না। তবে সংলাপের জন্য তার দল সব সময় প্রস্তুত রয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন বিরোধী নেতা খালেদা জিয়াকে ফোন করেন। এসময় প্রায় আধা ঘণ্টা তিনি বিরোধী নেতার সঙ্গে চলমান রাজনৈতিক সঙ্কটজনক পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেন।
এরপর রাত সাড়ে ৮টায় চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে উভয়ের ফোনালাপের বিস্তারিত জানান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, বান কি মুন খালেদা জিয়াকে বলেছেন, জাতিসংঘ বাংলাদেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে এবং উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন। জাতিসংঘ সব দলের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেখতে চায়। একই সঙ্গে তিনি সরকার ও বিরোধী দলের সঙ্গে সংলাপের বিষয়ে গুরুত্ব দিয়েছেন। বিরোধী দলীয় নেতাকে বাংলাদেশে বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে তার উদ্বেগের কথা জানান জাতিসংঘ মহাসচিব । তিনি বলেন, আগামী নির্বাচন যাতে সব দলের অংশগ্রহণে অবাধ ও সুষ্ঠভাবে হয়, সেজন্য আমি উদ্যোগ নিয়েছিলাম। কিন্তু সেই প্রচেষ্টা বেশিদূর এগোয়নি বলে তিনি তার উদ্বেগ কথাও বিরোধী দলীয় নেতার কাছে প্রকাশ করেন। জবাবে বিরোধী নেতা খালেদা জিয়াও জাতিসংঘ মহাসচিবকে বলেছেন, সংলাপের তার দল সব সময় প্রস্তুত রয়েছে।দেশের নব্বই ভাগ মানুষ, সুশীল সমাজ, রাজনৈতিক দল বিশ্বাসযোগ্য ও অবাধ নির্বাচনে বিশ্বাস করে। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য নির্দলীয় সরকারের কোন বিকল্প নেই। সেই সঙ্গে একটি শক্তিশালী নির্বাচন কমিশনও জরুরি। তবে কোন দলীয় সরকারের অধীনে ১৮ দল নির্র্বাচনে যাবে না বলে জানান বিরোধী নেতা। সংবাদ সম্মেলনে বিরোধীদলীয় নেতার একান্ত সচিব এএসএম সালেহ আহমেদ, বিশেষ সহকারী অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, বিরোধী দলীয় নেতার সহকারী একান্ত সচিব সুরাতুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।