জলাবদ্ধতার অভিশাপ থেকে মুক্তির আকুতি

প্রকাশ:| সোমবার, ১০ জুলাই , ২০১৭ সময় ১০:১৮ অপরাহ্ণ

আলো জ্বালিয়ে জলাবদ্ধতার অভিশাপ থেকে মুক্তির আকুতি জানিয়েছেন নগরীর আগ্রাবাদ ও হালিশহর এলাকার বাসিন্দারা। ওই এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন এই কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

রোববার (০৯ জুলাই) সন্ধ্যায় নগরীর আগ্রাবাদ এক্সেস রোডে গোল্ডেন টাচ কমিউনিটি সেন্টারের সামনে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে সেখানে একটি সংক্ষিপ্ত আলোচনা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে খোরশেদ আলম সুজন উপস্থিত জনসাধারণের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা যাদের নির্বাচিত করে সংসদে পাঠিয়েছেন, তারা সংসদে আপনাদের দুর্দশার কথা বলেন না। গত ২৫ বছর ধরে এখানকার জনপ্রতিনিধি যারা হয়েছেন তারা সবাই ইমিটিশন জনপ্রতিনিধি। তারা সংসদে চুপ থেকেছেন, বিজনেস হাউসে সচল থেকেছেন। তারা জনগণের প্রতিনিধত্ব করেননি, নিজেদের অর্থসম্পদ বাড়ানোর কাজ করেছেন। তারা প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে জনগণের সাথে।

সুজন আরও বলেন, আগ্রাবাদ-হালিশহর এলাকা বন্দরের সঙ্গে সংযুক্ত। এই এলাকার সুখে-দু:খে এগিয়ে আসা বন্দরের দায়িত্ব।

‘আমাদের বাপ-দাদার সহায় সম্পত্তি ব্যবহার করে চট্টগ্রাম বন্দর গড়ে উঠেছে। বন্দরে আজ সম্পদের পাহাড়। সাতভূতে লুটে খায়, পাড়া-পড়শির হিসাব নাই। ’ বলেই মনে করেন সুজন।

সমাবেশ থেকে জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তির জন্য মহেশখালকে পরিকল্পিতভাবে খনন করে সন্টগোলায় খালের প্রবেশ মুখে পাম্প হাউসসহ স্লুইসগেট নির্মাণের দাবি জানান সুজন।

দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ ইব্রাহিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক কাউন্সিলর জাবেদ নজরুল ইসলাম, বন্দর থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. ইলিয়াছ, ৩৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. হাসান,৩৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান, আব্দুর রহমান মিয়া, ক্যাপ্টেন মোবারক হোসেন, আব্দুর রাজ্জাক, মো. শফি, হাজী হোসেন কোম্পানী, মোরশেদ আলম, কামরুল হোসেন, হাজী হাবিব শরীফ,কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা আজিজুর রহমান আজিজ,আব্দুর রহিম জিল্লু,ইরফানূল আলম জিকু,ইমরান আহমেদ ইমু, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা ইমু,জয়নাল উদ্দিন জাহেদ,রনি মির্জা,নোমান,মিনহাজুল আবেদিন সানি,জোবায়ের জাবির,রিমন,আবির প্রমূখ।