জলজটে যানজট

প্রকাশ:| বুধবার, ৫ এপ্রিল , ২০১৭ সময় ১১:৪৫ অপরাহ্ণ

এক দিনের মাথায় ফের জলাবদ্ধতার দুর্ভোগে পড়লেন নগরবাসী। ষোলশহর দুই নম্বর গেট, মুরাদপুর, প্রবর্তক মোড়, আগ্রাবাদ, চকবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে মূল সড়কেই হাঁটু থেকে কোমর পানি জমে যায়।

এ সময় ঘণ্টার পর ঘণ্টা কর্মস্থল থেকে ঘরমুখো মানুষ আটকা পড়েন। পানি ঢুকে গাড়ি নষ্ট হয়ে যাওয়ায় কোথাও কোথাও দেখা দেয় তীব্র যানজট। নারী, শিশু, বৃদ্ধারা পড়েন সীমাহীন দুর্ভোগে।

বুধবার (০৫ এপ্রিল) সন্ধ্যা ছয়টা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিস ২৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে। এর আগের তিন ঘণ্টায় ছিল ৯ দশমিক ৩ মিলিমিটার। নয়টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টি হয় ৩৪ দশমিক ২ মিলিমিটার।

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ মো. মুশফিকুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির সভাপতি শৈবাল দাশ সুমন জানান, চৈত্র মাসে জলাবদ্ধতা হওয়াটা প্রাকৃতিক দুর্যোগ। এটা ঠিক বৃষ্টির পানি নামার পথে নানাভাবে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হওয়ায় সড়ক ডুবে যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার (০৬ এপ্রিল) থেকে যেখানে বৃষ্টির পানি নামতে বাধা পেয়েছে সেগুলো পরিষ্কার করে দেওয়া হবে।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, বর্তমান মেয়র দায়িত্ব নেওয়ার পর খালের বর্জ্য অপসারণের নামে কোটি কোটি টাকা নয়ছয় করার পথ রুদ্ধ করে দিয়েছেন। আগের মেয়রের আমলে ‘৭৬ ট’ প্রক্রিয়ায় ৫ লাখ টাকার নিচের অঙ্কে টেন্ডার দিয়ে খালের বর্জ্য অপসারণ না করেই টাকা মেরে দেওয়া হতো। এতে খালের পানি প্রবাহে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। আশাকরি, আসন্ন বর্ষা মৌসুমের আগেই খালগুলো খনন করা সম্ভব হবে।


আরোও সংবাদ