জরুরি ভিত্তিতে রাজনৈতিক সমঝোতার আহ্বান

প্রকাশ:| রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর , ২০১৩ সময় ১০:৩৯ অপরাহ্ণ

জরুরি ভিত্তিতে রাজনৈতিক সমঝোতার আহ্বানদেশের চলমান রাজনৈতিক সহিংসতায় উদ্বেগ প্রকাশ করে ক্ষমতায় যাওয়ার লক্ষ্যে সংঘাত, প্রাণহানী ও শিল্প-বাণিজ্য ধ্বংসের পথ পরিহার করে জরুরি ভিত্তিতে রাজনৈতিক সমঝোতার আহ্বান জানিয়েছেন চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীরা।

রোববার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত চিটাগাং চেম্বার হাউসের সামনে শান্তির স্বপক্ষে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী সমাজের সাদা পতাকার মানববন্ধন কর্মসূচিতে এ আহ্বান জানানো হয়।

চিটাগাং চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, ‘বর্তমান সহিংস রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে চট্টগ্রাম বন্দরে ২৫ থেকে ৩০ হাজার কন্টেইনার আটকে আছে, ঢাকা-চট্টগ্রাম কাভার্ডভ্যান ভাড়া ১ লাখ টাকায় উন্নীত হয়েছে এবং সমগ্র দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ও কাঁচামাল পরিবহন স্থবির হয়ে পড়েছে। এতে করে শিল্পোৎপাদন মারাত্মকভাবে ব্যাহত ও আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম স্থবির এবং সময়মতো শিপমেন্ট করতে না পারার কারণে কোটি কোটি ডলার মূল্যের রপ্তানি আদেশ বাতিল হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘অর্থনীতি ঠিক না থাকলে রাজনীতি ঠিক থাকবে না। দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে সরকার ও বিরোধী দলকে পারস্পরিক আস্থার ভিত্তিতে অতি দ্রুত সমঝোতায় উপনীত হওয়ার আহ্বান করছি। শান্তি ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করার দাবি করছি।’

চেম্বার সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য, দুগ্ধ, রপ্তানি পণ্য, চট্টগ্রাম বন্দর, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ও ট্রেন যোগাযোগ হরতালের আওতামুক্ত রাখার আহ্বান জানান। এছাড়া হরতাল, সহিংসতা, লুটতরাজ বন্ধ এবং গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাসহ জাতীয় সম্পদ ধ্বংস না করার জন্য সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের প্রতি অনুরোধ জানান।

চিটাগাং চেম্বারের নেতৃত্বে মানববন্ধনে অংশ নেন- বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, বিজিএপিএমইএ, বারভিডা, খাতুনগঞ্জ ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশন, দোকান মালিক সমিতি, ওম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি, জুবিলী রোড মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন, বিপণী বিতান মালিক সমিতি, বন্দর ট্রাক মালিক সমিতি, টেরীবাজার ব্যবসায়ী সমিতি, সাউথল্যান্ড সেন্টার দোকান মালিক সমিতি, পোলট্রি ব্রিডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ, টি ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশন, প্রাইম মুভার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন, ফ্রেইট ফরওয়ার্ডার্স অ্যাসোসিয়েশন, সিএন্ডএফ, আন্তঃজেলা ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান সমিতি, সড়ক পরিবহন, ক্ষুদ্র পাদুকা শিল্প, ডেকোরেটর মালিক সমিতি, বাংলাদেশ রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি, মিমি সুপার মালিক সমিতি, জুয়েলারী সমিতিসহ চট্টগ্রামের সর্বস্তরের ব্যবসায়ী নেতারা।