জন্ডিস প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ৫০ হাজার প্রচারপত্র বিলি

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৮ মে , ২০১৮ সময় ১০:০৩ অপরাহ্ণ

নগরের হালিশহরে এ পর্যন্ত সরকারিভাবে পানিবাহিত হেপাটাইটিস-ই (জন্ডিস) ভাইরাসে আক্রান্ত ১২৮ রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ২৩ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হেপাটাইটিস-ই এবং জন্ডিস প্রতিরোধে প্রাথমিক করণীয় সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ৫০ হাজার প্রচারপত্র বিলি করছে সিভিল সার্জন কার্যালয়। মঙ্গলবার (৮ মে) প্রচারপত্র ৩ ঘণ্টায় ৮ হাজার প্রচারপত্র বিলি করে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিসেস (বিআইটিআইডি) হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে এ পর্যন্ত ২৩ জন হেপাটাইটিস-ই ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীকে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকজন গর্ভবতী নারীও ছিলেন। তারা সুস্থ হয়ে গেছেন।

রোববার (৫ মে) হালিশহর আরবার ডিসপেন্সারিতে খোলা ক্যাম্পে জন্ডিসের প্রাথমিক লক্ষণ চোখ ও প্রস্রাব হলুদ হওয়া ৩১ জন, সোমবার ৩০ জন ও মঙ্গলবার ২২ জন রোগীর রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এগুলো বিআইটিআইডিতে পরীক্ষা করা হবে। তিন দিন পরপর পর্যায়ক্রমে ফলাফল জানা যাবে। এ ছাড়া ঢাকা থেকে রোগতত্ত্ব-রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পাঁচ সদস্যের একটি দল এসে ৩১ জন রোগীর রক্তের এবং হালিশহরে ওয়াসার প্রধান সরবরাহ পয়েন্ট নয়াবাজার, আই ব্লক এবং তিনটি বাসার ট্যাংক থেকে পানির নমুনা নিয়ে গেছে। সেগুলোর ফলাফলও কয়েকদিনের মধ্যে পাওয়া যাবে। এরপর ওই এলাকার জন্য করণীয় নির্ধারণ করা হবে।

এক প্রশ্নের উত্তরে সিভিল সার্জন বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জানিয়েছেন গর্ভবতী নারীর জন্য হেপাটাইটিস-ই ভাইরাস ঝুঁকিপূর্ণ। প্রতি পাঁচজনে একজনের মৃত্যুর আশঙ্কা রয়েছে।

এক প্রশ্নের উত্তরে সিভিল সার্জন বলেন, যেহেতু গর্ভবতী নারীর ঝুঁকি বেশি তাই আমরা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল এবং বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের চেম্বারে গর্ভবতী রোগীর জন্ডিসের লক্ষণ দেখা দিলে বিশেষ যত্ন এবং আমাদের নিয়ন্ত্রণ কক্ষে জানানোর অনুরোধ করা হয়েছে।


আরোও সংবাদ