জনদৃষ্টি ভিন্ন খাতে ফেরাতে দুদকের চেক হস্তান্তর নাটক

প্রকাশ:| বুধবার, ২৮ আগস্ট , ২০১৩ সময় ০৮:৫৪ অপরাহ্ণ

ফখরুল  mirza_fakhrul_islam_alamgir_15034বেগম খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর বিদেশে লেনদেন হওয়া ঘুষের অর্থ দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কাছে চেকের মাধ্যমে হস্তান্তরের ঘটনাকে ‘নাটক’ বলে আখ্যায়িত করেছে বিএনপি।

মঙ্গলবার দুদক আয়োজিত ‘পাচারকৃত সম্পদ পুনরুদ্ধারবিষয়ক’ প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানের সমাপনী দিনে দুদকের চেয়ারম্যান মো. বদিউজ্জামানের কাছে একটি প্রতীকী চেক হস্তান্তর করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তৃতীয়বারের মতো ঘুষের অর্থের আরও প্রায় সাড়ে সাত কোটি টাকা দেশে এনেছে দুদক।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম দাবি করেন, জনদৃষ্টি ভিন্ন খাতে ফেরাতে সরকার নতুন নতুন ইস্যু সামনে নিয়ে আসছে। এটি তারই অংশ।

বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে চেক হস্তান্তর বিষয়ে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানায় বিএনপি।

মির্জা ফখরুল বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন এখন জাতীয় দাবিতে পরিণত হয়েছে। এখান থেকে জনদৃষ্টি ভিন্ন খাতে ফেরাতে সরকার নতুন নতুন ইস্যু সামনে আনছে। দুদক খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর একটি পুরোনো মামলার রায়ের বরাত দিয়ে নাটক করেছে। ক্রিকেট খেলায় যেভাবে বড় চেক অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়, তেমনি অ্যাটর্নি জেনারেল একটি বড় চেক দুদকের হাতে তুলে দিয়েছেন।

বিএনপির মহাসচিব অভিযোগ করেন, আরাফাত রহমান কোকো ও বিএনপিকে হেয়প্রতিপন্ন করতে চেক হস্তান্তরের ঘটনা ঘটানো হয়েছে। একইভাবে তারেক রহমানের বিরুদ্ধেও নানা অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। তারেক রহমান ও কোকোর বিরুদ্ধে যেসব মামলা, সেগুলো সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে তিনি দাবি করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার নিজেদের বিরুদ্ধে সব মামলা প্রত্যাহার করে নিচ্ছে, কিন্তু বিরোধী দলের একটি মামলাও প্রত্যাহার করেনি। এর উদ্দেশ্য হচ্ছে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করা। তিনি বলেন, পদ্মা সেতুর দুর্নীতি নিয়ে কানাডায় মামলা চলছে। কে কত শতাংশ ঘুষ নিয়েছেন, তা পত্রিকায় এসেছে। নিজেদের এসব অপকীর্তি ঢাকার জন্য সরকার এখন নানা অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন খোকা, সদস্য সচিব আবদুস সালাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।