‘‘জঙ্গীবাদ নির্মূল ও অর্থনৈতিক মুক্তির লড়াইয়ে সর্বোচ্চ ত্যাগে আমরা প্রস্তুত’’

প্রকাশ:| রবিবার, ১০ জানুয়ারি , ২০১৬ সময় ০৮:০০ অপরাহ্ণ

জঙ্গি নির্মূল ২

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এ.বি.এম মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, একাত্তরে আমরা কোন পরাভবকে মানিনি, মাথা নত করিনি, যুদ্দ জয়ী এই জাতি এখন স্বাধীন সত্তায় সামনের দিকে এগুচ্ছে। এই অগ্রযাত্রাকে যারাই রুখবে তারা বাঙালি জাতিসত্তার শত্র“। তাদেরকে যুদ্ধাপরাধীদের মতই বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক মুক্তির লড়াইয়ে বিজয়ী হতে আমাদের সর্বোচ্চ ত্যাগের জন্য আমরা প্রস্তুত।
জঙ্গি নির্মূল
আজ বিকেলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, আজ জানা হয়ে গেছে কারা এদেশকে পেছনের দিকে নিয়ে যেতে চায়, যারা এদেশকে আবারও পাকিস্তান বানাতে চায়। তথাকথিত সুশীল সমাজের কেউ কেউ বড় গলায় কথা বলে মুক্তিযুদ্ধ এবং ৩০ লাখ শহীদ ও শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মত্যাগ নিয়ে যারা কূটক্তি করেন তাদের পক্ষে সাফাই গান, এরা জ্ঞানপাপী। সমাজের যে অবস্থানেই তাঁরা খাকুক না কেন ত৭াদের মুখোশ খুলে দিতে হভে। তিনি আরো বলেন, বাঙালি ও বাংলাদের মুক্তিযুদ্ধের মীমাংসিত বিষয় যারা নতুন করে প্রশ্ন তুলেছেন তাদের সামান্য ছাড় দেয়া হবে না। তাদের পরিণতি ভয়াবহ হবে। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেন, ৭২’র ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানে ফাঁসি দন্ড প্রাপ্ত মৃত্যুর কবরের পাশ থেকে ফিরে অসার মধ্য দিয়ে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের বিজয় পূর্ণতা পায়। তবে পরিপূর্ণ মুক্তির জন্য বঙ্গবন্ধ যে সোনার বাংরা বাস্তবায়নের ডাক দিয়ে স্বাধীনতাকে অর্থবহ করার নির্দেশনা দিয়েছিলেন তা কখনও অর্জিত হয়নি। তারপরও আজ আমরা গরীব দেশ নয়, কেউ না খেয়ে মরছে না। অগ্রগতির সকল সূচকে বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে। এই অর্জন সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেশপ্রেমসূলভ নেতৃত্বের বলিষ্ঠ প্রকাশে। তিনি আরো বলেন, আমাদেরকে আত্ম সমালোচনা করতে হবে। আত্মতুষ্টিতে ভুগলে চলবে না। আমাদেরও মানবতার বড় শত্র“ জঙ্গীবাদ। এই জঙ্গীবাদ নির্মূল করার আগে তাদের ইন্ধনদাতাদের মুখোশ উম্মোচন করে জনবিচ্ছিন্ন করার জন্য মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি প্রতি তিনি উদাত্ত আহ্বান জানান। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, আলহাজ্ব নঈম উদ্দিন চৌধুরী, আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুজন, আলহাজ্ব আলতাব হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, মহানগর শ্রমিক লীগের বখতিয়ার উদ্দিন খান, থানা আওয়ামী লীগের আলহাজ্ব সুলতান আহমেদ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আলহাজ্ব পেয়ার মোহাম্মদ, গাজী শফিউল আজিম, কাইসার মালিক, মহানগর যুবলীগের দেলোয়ার হোসেন খোকা, উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য এডভোকেট শেখ ইফতেকার সাইমুল চৌধুরী, চন্দন ধর, মশিউর রহমান চৌধুরী, দেবাশীষ গুহ বুলবুল, আবদুল আহাদ, আবু তাহের, ইঞ্জিনিয়ার মানস রক্ষিত ও শহিদুল আলম প্রমুখ। উল্লেখ্য ১৮নং পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর হারুন অর রশিদ এর পিতা হাজী খুইল্যা মিয়া সওদাগর এর মৃত্যুতে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আলহাজ্ব এ.বি.এম মহিউদ্দিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিন গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।