জঙ্গিদের আগ্রাসন বাড়ছে এখনই রুখে দাঁড়াতে হবে

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ , ২০১৭ সময় ১০:৪৯ অপরাহ্ণ

বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী সমাবেশে ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী

প্রেস রিলিজ: বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা কমিটি আয়োজিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষ্যে “বঙ্গবন্ধুর হৃদয় যেন, বাংলাদেশ” শীর্ষক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চবি’র উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর বয়স থেকেই সংগ্রামী ও অসম্ভব সাহসী ছিলেন উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, সংগ্রামী বঙ্গবন্ধু জন্মগ্রহণ করেছিল বলেই বাঙালি প্রিয় স্বাধীনতা পেয়েছে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু এখন আন্তর্জাতিক সম্পদ। বিশ্বের খ্যাতিমান ব্যক্তিরা বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শ ও চেতনাকে অনুসরণ করছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাঙালীর কিছু কুলঙ্গার বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে বিশ্বের রাজনীতিতে বাংলাদেশকে কলঙ্কিত করেছে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সমাপ্ত কর্মকাণ্ড সার্বজনীন বাস্তবায়ন করার জন্য বিশ্বনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ ও সাহসী নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বলেন শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে অবশ্যই বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশে পরিণত হবে।
প্রধান বক্তা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতির জন্য আর্শীবাদ হয়ে জন্মেছিলেন। বঙ্গবন্ধু মানে সোনার বাংলাদেশ। বিশ্বনেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণের জন্য রাত দিন পরিশ্রম করছেন। এ মুহুর্তে সকল রাজনৈতিক অনৈক্য ভূলে গিয়ে সকল দলকে শেখ হাসিনার পাশে থেকে সহযোগিতা করার জন্য আহ্বান জানান।
বিশেষ অতিথি ডা. শেখ শফিউল আজম বলেন, জঙ্গিবাদের আগ্রাসন বাড়ছে। বিএনপি জামাতের পৃষ্ঠপোষকতায় জঙ্গিবাদ সারা দেশে অনৈতিক অপকর্ম করে চলছে। তিনি জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।
অদ্য ১৬ মার্চ বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা কমিটির উদ্যোগে সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি চিত্রনায়ক পঙ্কজ বৈদ্য সুজন। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক দিদার আশরাফী ও সাংগঠনিক সম্পাদক আলী আহমেদ শাহিনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন নগর আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চসিক কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক শামীমা হারুন লুবনা, মহানগর যুবলীগ নেতা সুমন দেব নাথ, আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল আলম, মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমদ, লায়ন এ.কে. জাহেদ চৌধুরী, সাংবাদিক সুজিত কুমার দাশ, ছাবের আহমেদ, সফর আলী, এড. সুচিত্রা লালা মুন্নি, মুক্তিযোদ্ধা ভানু রঞ্জন চক্রবর্ত্তী, ন্যাপ নেতা মিঠুল দাশ গুপ্ত, স্বপন সেন, হেফাজতুল ইসলাম চৌধুরী, অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম খান, মুক্তিযোদ্ধা এস.এম. আবু তাহের, মুক্তিযোদ্ধা এস.এম. নুরুল আমিন, মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার আবুল কাশেম, মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান মিলন, মুক্তিযোদ্ধা রমিচ উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, হারুন উর রশিদ, কবি সঞ্চয় কুমারদাশ, ফাতেমা আক্তার, রিমন মহুরী, রোজি চৌধুরী, রূপালী খাতুন, সৈয়দা সাহানারা বেগম, ছেনোয়ারা সুলতানা, ফেরদৌসী বেগম মৌসুমী, দিবা দাশ, মতিউর রহমান সৌরভ, মোখলেছুর রহমান, সৈয়দ জাহেদ হোসেন, মজিবুর রহমান, এস.এম. শফিকুর রহমান, রফিকুল ইসলাম রাজু, শাহেদ আমিন, রোকেয়া সুলতানা, শ্রীমৎ উপেক্ষাপাল ভিক্ষু প্রমুখ।