ছাত্রলীগ নেতার জায়গা দখলে জামায়াত নেতা : থানায় অভিযোগ

প্রকাশ:| শনিবার, ৩১ অক্টোবর , ২০১৫ সময় ০৮:৫৫ অপরাহ্ণ

পেকুয়া প্রতিনিধি, কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক উপ-দপ্তর সম্পাদক পেকুয়া রাজাখালী দশের ঘোনার বাসিন্দা সরওয়ার কামালের ভোগদখলীয় জায়গা জবর দখলের অভিযোগ ওঠেছে একই এলাকার জামায়াত নেতা মৌওলানা এরশাদ আলীর বিরুদ্ধে। এ নিয়ে সরওয়ার কামাল বাদী হয়ে মৌ: এরশাদ আলী ও তার স্ত্রী রেনুয়ারাকে বিবাদী করে পেকুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এরশাদ আলীকে কাজ বন্ধের নির্দেশ প্রদান করলেও ভাড়াটে লোক দিয়ে ওই জায়গায় আবারো মাঠি দিয়ে ঘেরা দেওয়ার কাজ শুরু করায় দুপক্ষে চরম উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। যে কোন মূহর্তে ওই জায়গা নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষেরও আশংকা করছে স্থানীয়রা।
লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দশের ঘোনা এলাকার মৃত মো: ইছহাকের ছেলে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক উ-দপ্তর সম্পাদক সরওয়ার কামাল তার পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জায়গা নিয়ে ভোগদখল করে আসছেন। কিন্তু কিছুদিন আগে ওই জায়গার কু-দৃষ্টি দেয় একই এলাকার জামায়াত নেতা মৌ: এরশাদ আলী। এরই ধারাবাহিকতায় ওই জামায়াত নেতা ভাড়াটে লোক দিয়ে জায়গা জবর দখল করতে মাঠি কাটা শুরু করলে সরওয়ার কামাল রাজাখালী ইউপি কার্যালয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। ইউপি কার্যালয় কাজ বন্ধ করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে বৈঠকের সময় দিলেও জামায়াত নেতা তা অগ্রাহ্য করে আবারো কাজ শুরু করলে সরওয়ার কামাল দুজনকে বিবাদী করে পেকুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে ১৬০ ধারা মতে লোটিশ প্রদান করেন থানা পুলিশের তদন্তকারী কর্মকর্তা খাইরুল। জামায়াত নেতা তা আবারো অগ্রাহ্য করে কাজ চালিয়ে গেলে পুলিশ কর্মকর্তা খাইরুল সরোজমিন গিয়ে কাজ বন্ধের নির্দেশ প্রদান করেন। কিন্তু তারপরও ওই জামায়াত নেতা প্রশাসনের আইনকে অগ্রাহ্য করে কাজ চালিয়ে গেলে দুই পক্ষে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওই অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসআই খাইরুল জানান, সরওয়ার কামাল বাদী হয়ে মৌ:এরশাদ আলীসহ দুইজকে বিবাদী করে একটি অভিযোগ দায়ের করলে দুপক্ষকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আগামী ২ নভেম্বর থানায় হাজির হওয়ার নির্দেশ প্রদান করা হয়। কিন্তু তা অমান্য করায় সরাসরি পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রদান করেছি।