ছাত্রদলের দুই গ্রুপে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, আহত ১

প্রকাশ:| শনিবার, ১ জুলাই , ২০১৭ সময় ১১:২৭ অপরাহ্ণ

পেকুয়া উপজেলা ছাত্রদলে দুই গ্রুপে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ১ জুলাই শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে চৌমহুনীতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দু’পক্ষে চরম উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। তাৎক্ষনিক উপ-পরিদর্শক বিপুল চন্দ্র রায় একদল পুলিশ ফোর্স নিয়ে পরিস্থিতি মোকাবেলায় চৌমহুনীতে অবস্থান নিয়ে ছাত্রদলের দু’পক্ষের নেতাকর্মীদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ ঘটনায় উপজেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আকিক মামুন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, চৌমহুনী কেন্দ্রীক উপজেলা ছাত্রদল দু’গ্রুপে বিভক্ত। এক গ্রুপে নেতৃত্ব দিচ্ছে সাংগঠনিক সম্পাদক আকিক মামুন অপর গ্রুপে সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মো: এরশাদ। আধিপত্য নিয়ে গত তিনদিন ধরে তাদের মধ্যে উত্তেজনা ও হামলার ঘটনা চলে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় দু’পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে চৌমহুনীতে অবস্থান নেন। এক পর্যায়ে ইট পাটকেল ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। আতংকে ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ করে দেয়। আগত পথচারীরা দ্রুত চৌমহুনী ত্যাগ করে। পরে পুলিশ ঘটনা স্থলে এসে উত্তেজিত ছাত্রদল নেতাকর্মীদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। কাউকে আটক করতে পারেনি।

উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি কামরান জাদিদ মুকুট বলেন, আকিক মামুন ও মো: এরশাদ ছাত্রদলের উপজেলা নেতা হলেও তারা খুবই উৎশৃংখল রাজনীতি করেন। এমনকি বিগত সময়ে তাদের এমন অনৈতিক কর্মকান্ড জেলা নেতৃবৃন্দকে অবগত করা হয়েছে। শনিবারের ঘটনা তাদের ব্যক্তিগত এবং তারা নিজেরাই দায়ী। এর দায়ভার ছাত্রদল নিবে না। ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার খবর পেয়ে তাৎক্ষনিকভাবে জেলা নেতৃবৃন্দকে অবগত করা হয়েছে। এবং দোষীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত থানার উপ-পরিদর্শক বিপুল চন্দ্র রায় বলেন, চৌমহুনীতে দু’পক্ষে সংঘর্ষের খবর পেয়ে তাৎক্ষনিকভাবে তাদেরকে ধাওয়া দিলে তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরে শুনেছি ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটেছে।