চেয়ারম্যানের নিজ অর্থায়নে কাঁকপাড়া বেড়িবাঁধের কাজ শুরু

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বুধবার, ২৩ মে , ২০১৮ সময় ১০:৫৭ অপরাহ্ণ

মোঃ ফারুক, পেকুয়া:

অবেশেষ নিজ অর্থায়নে মগনামা ইউনিয়নের কাঁকপাড়াস্থ বেড়িবাঁধের কাজ শুরু করলেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম। বরাদ্ধকৃত ঠিকাদার উন্নয়ন ইন্টারন্যাশনাল গাফিলাতি করে কাজ বন্ধ রাখলেও উপকূলীয় এলাকাবাসীর দুঃখ দূর্দশা লাগবে ইউপি চেয়ারম্যান কাজটি শুরু করেছেন।
গত ২৩ মে বুধবার সকালে স্ক্যলাভেটর দিয়ে মাঠি কাটা ও জিউ টেক্সটাইল দিয়ে বাঁধ সংস্কারের কাজ শুরু করেছেন।
চেয়ারম্যানের নিজ অর্থায়নে কাজ শুরু করায় স্থানীয় এলাকাবাসীরা সন্তোশ প্রকাশ করে দায়ী ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী করেছেন।
জানা গেছে, পেকুয়া উপজেলার কুতুবদিয়া চ্যানেলের কূলবর্তি মগনামা ইউনিয়নের পাউবো নিয়ন্ত্রিত বেড়িবাঁধের কাকঁপাড়া পয়েন্টে গত ঘুর্ণিঝড় রোয়ানুর আঘাতে বিলীন হওয়া ৪০ চেইন বেড়িবাঁধ সংস্কার না হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে সাগরের পানিতে আবারো প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা করছে মগনামাবাসী। ফলে চরম আতঙ্কে দিনাপাত করছে এলাকার ৩০ হাজার সাধারণ জনগণ। বসতবাড়ি, জিনিসপত্র পুনরায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিরও আশঙ্কা রয়েছে। এ বেড়িবাঁধ সংস্কার না হওয়ায় চরম হুমকির মুখে পড়েছে কাকঁপাড়ার একটি আশ্রয় কেন্দ্র ও একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন।
গত বর্ষা মৌসুমেও কাঁকপাড়ায় বিলীন পাউবোর ওই বেড়িবাঁধের অংশ দিয়ে সাগরের জোয়ারের পানি প্রবেশ করে মগনামার ইউনিয়নের শত শত ঘরবাড়ি ও স্থাপনার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল। আসন্ন বর্ষা মৌসুমের আগেই বেড়িবাঁধ সংস্কার করা না হলে আবারো সাগরের পানিতে ভাসতে হবে মগনামাবাসীকে। এ উপলদ্ধি থেকে গত ৪দিন আগে চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী এলাকাবাসী ও সাংবাদিকদের সাথে নিয়ে কাকঁপাড়া বেড়িবাঁধ অংশ সরেজমিন পরিদর্শন করে কাজ দ্রুত শুরু করায় জন্য স্থানীয় ঠিকাদার ও সংশ্লিষ্ট দপ্তরের দৃষ্টি করলেও তা অগ্রাহ্য করেছেন ঠিকাদারী প্রতিষ্টান উন্নয়ন ইন্টারন্যাশনাল। এমনকি কাঁকপাড়া বেড়িবাঁধ অংশে তাদের চলমান স্কলেভেটর কাজ না করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে স্থানীয় জনগণের প্রতিরোধের মুখে পালিয়ে যায়। অথচ বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বিশেষ বরাদ্ধ দিয়ে বেড়িবাঁধের কাজ শেষ করার তাগিদ দিয়েছেন। সরকারের উন্নয়নকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে স্থানীয় একটি চক্রের সাথে হাত মিলিয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্টান কাজে নয় ছয় শুরু করে দিয়েছে। সর্বশেষ চেয়ারম্যান তার এলাকার উন্নয়নকে আরো এক দাফ এগিয়ে নিতে নিজ অর্থায়নে বেড়িবাঁধের কাজ শুরু করেছেন।
মগনামা ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম জানান, কাকঁপাড়া এলাকার বেড়িবাঁধের অবস্থা খুবই নাজুক ছিল। সামনের বর্ষা মৌসুমে ভাঙ্গা ওই বেড়িবাঁধ পয়েন্ট দিয়ে আবারো সাগরের পানি প্রবেশ করে পুরো মগনামা ও উজানটিয়ার একটি অংশ প্লাবিত হওয়ার যতেষ্ট আশঙ্কা ছিল। এতে মগনামা এলাকার একমাত্র ঘুর্ণিঝড় আশ্রয়ন কেন্দ্র ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ স্থানীয় বাসিন্দাদের অসংখ্য বসতঘর সাগরগর্ভে উপক্রম হয়েছে। এছাড়াও হাজার হাজার একর মৎস্য প্রজেক্ট সাগরে তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তিনি বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে নেওয়ার জন্য পাউবোর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের কাছে জোরালো দাবি জানানোর পর কোন ধরণের সুরহা হয়নি। উল্টো ঠিকাদারী প্রতিষ্টান তাদের কাজ বন্ধ করার চেষ্টা করে। সর্বশেষ সাধারণ জনগণের কথা চিন্তা করে কাঁকপাড়া বেড়িবাঁধের কাজ শুরু করে দিলাম। ২৭ সেইন মত বেড়িবাঁধের কাজ শেষ করতে হবে। সাধারণ জনগণ সাথে থাকলে মগনামাকে উন্নয়নের রুল মড়েল হিসেবে প্রতিষ্টা করবো ইনশাল্লাহ