চেক প্রতারণা: এক ব্যবসায়ীকে কারাদন্ড

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর , ২০১৫ সময় ০৯:৪৪ অপরাহ্ণ

কারাদন্ডচেক প্রতারণার অভিযোগে দায়ের হওয়া একটি মামলায় ব্যবসায়ী খোরশেদ আলমকে দশ মাসের কারাদন্ড দিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত। একই রায়ে আদালত তাকে ১৬ লক্ষ ১০ হাজার ২৫৫ টাকা অর্থদন্ড দিয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রামের সপ্তম যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ সালমা বেগম এ রায় দিয়েছেন।

দন্ডিত ব্যবসায়ী খোরশেদ আলম মেসার্স ইউনিক এন্টারপ্রাইজ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের স্বত্তাধিকারী এবং বিএম স্টিল রি-রোলিং মিলের পরিচালক বলে জানিয়েছেন আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইকবাল হাসান।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ইউনিক এন্টারপ্রাইজের পক্ষে খোরশেদ আলমের সঙ্গে সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারির কদমরসুলের মেসার্স আল-হাদি এন্টারপ্রাইজের ১৬ লক্ষ ১০ হাজার ২৫৫ টাকার ব্যবসায়িক লেনদেন হয়। সেই টাকা পরিশোধের অংশ হিসেবে খোরশেদ আলম ২০১২ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর, ২৬ ডিসেম্বর এবং ২৩ জানুয়ারি পৃথকভাবে তিনটি সাউথইস্ট ব্যাংকের চেক দেন আল-হাদি এন্টারপ্রাইজকে।

কিন্তু চেক তিনটি ২০১৩ সালের ১৭ ও ২৩ জানুয়ারি ব্যাংকে জমা দেয়ার পর অপর্যাপ্ত তহবিলের কারণে প্রত্যাখাত হয়। ৩১ জানুয়ারি আল-হাদি এন্টারপ্রাইজের মালিক বদিউল আলম লিগ্যাল নোটিশ দেন। ৬ ফেব্রুয়ারি খোরশেদ আলম লিগ্যাল নোটিশ গ্রহণ করলেও টাকা পরিশোধের কোন উদ্যোগ নেননি। ২৪ মার্চ বদিউল আলম বাদি হয়ে খোরশেদের বিরুদ্ধে নিগোশিয়েবল ইনস্ট্রুমেন্ট অ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারায় আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন এবং সাক্ষ্যগ্রহণের পর আদালত মঙ্গলবার রায় দেন। আসামি খোরশেদ আলম বর্তমানে পলাতক আছেন বলে ‍জানিয়েছেন আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইকবাল হাসান।