চুয়েট স্কুল এন্ড কলেজ ২০ ফেব্র“য়ারী পর্যন্ত স্কুল বন্ধ ঘোষনা

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১১ ফেব্রুয়ারি , ২০১৪ সময় ১০:৪১ অপরাহ্ণ

শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ ও মানবন্ধন,চুয়েট স্কুল এন্ড কলেজের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগে বহিষ্কার,উদ্ভট পরিস্থিতি এড়াতে ২০ ফেব্র“য়ারী পর্যন্ত স্কুল বন্ধ ঘোষনা
কফিউল আলম, রাউজান ঃ
চট্টগ্রামের রাউজানের শীর্ষ বিদ্যাপীঠ খ্যাত চুয়েট স্কুল এন্ড কলেজে এক শিক্ষককের বিরুদ্ধে কোচিং বাণিজ্য, শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে সাময়িক বহিষ্কারের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা গত মঙ্গল ও বুধবার দুইদিন ধরে বিক্ষোভ ও মানব বন্ধন করে তাদের প্রিয় শিক্ষককে পূণরায় বহাল রাখার দাবী জানিয়েছে। এ ঘটনায় গত ১১ ফেব্র“য়ারী বুধবার উদ্ভট পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আগামী ২০ ফেব্র“য়ারী পর্যন্ত স্কুল এন্ড কলেজের পাঠদান বন্ধ ঘোষানা করেছে কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে শিক্ষক, পরিচালনা কমিটি ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। বুধবার দুপরে স্কুল ছুটি শেষে ছাত্র-ছাত্রীরা সাংবাদিকদের জানিয়েছে, স্কুলের সঞ্জিব কুমার রায় একজন ভাল শিক্ষক। তিনি আমাদের প্রাণ প্রিয় স্যার। তার বিরুদ্ধে অহেতুক অভিযোগ এনে বহিষ্কার করে স্কুলের পরিবেশ নষ্ট করার জন্য কিছু লোক ষঢ়যন্ত্র করছে। আমরা তা হতে দেবনা। স্কুলের শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে, তারা বিক্ষোভ শেষে চুয়েটের ভিসিকে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে অবহিত করেছে।
এ বিষয়ে প্রিন্সিপাল গৌরি প্রভা দাশ বলেন, সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোফরানের সঙ্গে অভিযুক্ত সঞ্জিব উদ্ব্যত্তপূর্ণ আচরণ করেছেন। এছাড়াও ওনার বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে ম্যানেজিং কমিটি সাময়িক বরখাস্ত করেছি। এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি এ বিষয়ে পরবর্তি সিদ্ধান্ত নিবে। তবে স্কুলের উদ্ভট পরিস্থিতি এড়াতে ২০ ফেব্র“য়ারী পর্যন্ত বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে।
এ প্রসঙ্গে সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক গোফরান উদ্দিন বলেন, স্কুলের শিক্ষক সঞ্জিব সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়মবর্হিভুত কাজ করছে স্কুলে। নিষেধাজ্ঞা থাকলেও সে প্রাইভেট বাণিজ্য চালাচ্ছে। তাই তার বিরুদ্ধে শাস্তি স্বরুপ সাময়িক বরখাস্ত ঘোষনা করা হয়েছে। তবে প্রাইভেট বাণিজ্যের অভিযোগে বহিষ্কারের বিষয়টি সঠিক নয় বলে জানিয়েছেন বর্তমান প্রিন্সিপাল গৌরি প্রভা দে। এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক সঞ্জিব কুমার রায় বলেন, আমাদের স্কুল সম্পূর্ণ সরকারী নিয়মের আওতায় চলে। এখানে কোচিং বাণিজ্যের অভিযোগটি সম্পর্ণু ভুল ও ষঢ়যন্ত্র। তুচ্ছ ঘটনা থেকে ভুলবোঝাভুঝির সৃষ্টি করে ঘটনাকে বড় করা হচ্ছে।


আরোও সংবাদ