চুয়েট ছাত্র নাকিব’র লাশ উদ্ধার

প্রকাশ:| বুধবার, ১৬ আগস্ট , ২০১৭ সময় ০৭:২০ অপরাহ্ণ

নন্দন রায়, সীতাকুন্ড (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা ঃ চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে বেড়াতে এসে সাগরে ভেসে যায় চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নাকীব মোহাম্মদ খাব্বাব। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট সেখানে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। পরে তাদের সাথে নৌ বাহিনীর একটি টিম উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়। ২৪ ঘন্টা পর বুধবার দুপুর ৩টায় সন্দ্বীপ চ্যানেল থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালের দিকে সীতাকুন্ডে মুরাদপুর ইউনিয়নের গুলিয়াখালী সাগর পাড়ে চুয়েটের কিছু ছাত্র-ছাত্রী বেড়াতে আসে। দুপুর ৩টার দিকে তারা যখন সাগর পাড়ে বেড়াচ্ছিলো তখন সেখানে বেড়াতে আসা অন্য দুটি মেয়েকে সাগরে ডুবে যেতে দেখেন। মেয়ে দুটি অপরিচিত হলেও তাদেরকে বাঁচাতে চুয়েট ছাত্র খাব্বাব ও ইমতিয়াজ সেখানে ছুটে গিয়ে তাদেরকে পানি থেকে তুলতে চেষ্টা করেন। কিন্তু তারাও পানিতে ডুবে যেতে থাকেন। এসময় তাদের সহপাঠীরা চিৎকার শুরু করলে স্থানীয় জেলেরা এসে মেয়ে দুটি ও ইমতিয়াজকে উদ্ধার করলেও ভেসে যান খাব্বাব (২৩)। খাব্বাব কুমিল্লার বরুড়ার অধ্যাপক শফিকুল ইসলামের পুত্র। খাব্বাবের সহপাঠী চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ৪র্থ বর্ষের ছাত্র ফারহান লাবীব বলেন, তাঁরা ১০ শিক্ষার্থী এখানে বেড়াতে আসেন। হঠাৎ দুটি অপরিচিত মেয়ে সাগরে ডুবে যেতে থাকলে খাব্বাব ও ইমতিয়াজ সেখানে ছুটে গিয়ে তাদের উদ্ধারে চেষ্টা করেন। কিন্তু তারা নিজেরাও ডুবে যান। পরে সহপাঠীদের চিৎকারে জেলেরা এসে তাদের ৩ জনকে উদ্ধার করলেও খাব্বাব নিখোঁজ হয়। ঘটনাস্থলে দায়িত্বরত সীতাকুন্ডে ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা ওয়াসি আজাদ জানান, মঙ্গলবার বিকালে তারা ও নগরীর আগ্রাবাদের একটি টিম উদ্ধার অভিযানে অংশ নেন। পরে রাতে নৌ বাহিনীর একটি টিম উদ্ধার অভিযানে যোগ দেয়। বুধবার সকাল থেকে সন্দ্বীপ চ্যানেলে তল্লাশি চালিয়ে সন্দ্বীপ উপজেলার কাছাকাছি থেকে খাব্বাবের মৃত দেহ উদ্ধার করা হয়।


আরোও সংবাদ