চুয়েটে বর্ণিল আয়োজনে ‘প্রাণের বন্ধনে বৈশাখ’ উদযাপিত

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শনিবার, ১৪ এপ্রিল , ২০১৮ সময় ০৮:৫৪ অপরাহ্ণ

 

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এ বর্ণিল আয়োজনে অদ্য ১৪ এপ্রিল, ২০১৮ খ্রি: বাঙালির প্রাণের উৎসব বাংলা নববর্ষ উদযাপিত হয়েছে। পহেলা বৈশাখের প্রথম প্রহরে সকাল সাড়ে সাতটায় চুয়েট গোল চত্বরে বৈশাখী শোভাযাত্রার মাধ্যমে উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন চুয়েটের মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। শোভাযাত্রায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক- ছাত্রছাত্রী, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ শিশুকিশোররা অংশগ্রহণ করেন। শোভাযাত্রাটি চুয়েট আবাসিক গোল চত্বর থেকে শুরু হয়ে পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে চুয়েট বৈশাখী মঞ্চে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় চুয়েট ভাইস চ্যান্সেলর উপস্থিত সবাইকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান।

এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। চুয়েট স্টাফ ওয়েলফেয়ারের সভাপতি (দায়িত্বপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. কাজী দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী। এতে সঞ্চালনায় ছিলেন প্রাণের বন্ধনে বৈশাখের আহবায়ক প্রকৌশলী অচিন্ত কুমার চক্রবর্তী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, পহেলা বৈশাখ বাঙালির প্রাণের উৎসব। আগে গ্রাম পর্যায়ে এই উৎসব পালন করা হতো। এখন রাষ্ট্রীয়ভাবে উদযাপন করা হয়। বৈশাখের অন্যতম আকর্ষণ মঙ্গল শোভাযাত্রা এখন বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। যে কারণে পহেলা বৈশাখের আড়ম্বর এখন দিনদিন বহুগুণ বেড়েছে। জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলে এই উৎসবে অংশগ্রহণ করে। পুরনো বছরের সকল গ্লানি ও অপ্রাপ্তিকে পেছনে ফেলে নতুন বছরে নবপ্রত্যয়ে সবাই এগিয়ে যাবে এই প্রত্যাশা করছি।

এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যা ৬ ঘটিকা থেকে চুয়েট বৈশাখী মঞ্চে বর্ষবিদায়ের অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ’প্রাণের বন্ধনে বৈশাখ’ শীর্ষক দুইদিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালা। চুয়েট স্টাফ ওয়েলফেয়ার উক্ত অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে। । উৎসবের মূল আকর্ষণ ছিল চুয়েট বৈশাখী মঞ্চে চ্যানেল আই’য়ের ক্ষুদে গানরাজ এবং সেরাকণ্ঠের শিল্পীবৃন্দের মনোমুগ্ধকর পরিবেশনা। এ উপলক্ষে আয়োজিত অন্যান্য অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিল পান্তা-উৎসব, বাউল উৎসব, শিশু-কিশোরদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, লটারী ড্র, বৈশাখের আলোচনা প্রভৃতি।


আরোও সংবাদ