চাক্তাই খাল আজীবনের দু:খ হতে পারে না

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৩ জুন , ২০১৭ সময় ০৭:৫৫ অপরাহ্ণ

খাতুনগঞ্জ, বাকলিয়ায় জলাবদ্ধতা এলাকা পরিদর্শনকালে সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম

দুই দিনের টানা বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যাওয়া বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্যে ও অর্থনীতির প্রাণকেন্দ্র ওয়েল স্টীটখ্যাত খাতুনগঞ্জ, কোনবানীগঞ্জ, মিয়াখান নগর, ইছাকের পুল, কালামিয়া বাজার, বাদামতলী, চেয়ারম্যানঘাটা, লতিফের হাট, বজ্রঘোনা, বলিরহাটসহ ১৭,১৮ ও ১৯নং বৃহত্তর বাকলিয়া ওয়ার্ড পরিদর্শন করেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম। পরিদর্শনকালে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও স্থানীয় জনসাধারণের সাথে কথা বলেন। তিনি সমেবেত ব্যবসায়ী ও স্থানীয় জনগণের উদ্দেশ্যে বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, কোন অবহেলায় চাক্তাই খাল চট্টগ্রামাবাসীর আজীবনের দু:খ হতে পারে না। জোয়ারের পানি ও অল্প বৃষ্টিতে বার বার তলিয়ে যাওয়ার জন্য চাক্তাই খানের খনন কাজে গাফেলতিই দায়ী। খালের দুই পাশে অবৈধ দখলদারদের অপসান ও খাল খননের যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
অথচ এই চাক্তাই খালকে ঘিরেই চট্টগ্রাম তথা সারাবাংলাদেশে বাণিজ্যিক কার্যক্রম পরিচালিত হতো। আজো চাক্তাই, খাতুনগঞ্জ, কোরবানীগঞ্জ, আসাদগঞ্জকে গিরে সারা দেশে বাণিজ্যের সিংহভাগ পরিচালিত হয়। নৌপথে সহজ যোগাযোগের কারণে চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ ব্যবসা-বাণিজ্যের পাদপীঠ হয়ে ওঠে। সারাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য এখান থেকে পরিচালিত হয়ে আসছিল। কোটি কোটি টাকার বিনিয়োগ জোয়ারের পানিতে নষ্ট হয়ে যাওয়া অত্যন্ত দু:খজনক। এই দু:খের কথা চিন্তা করে রিভার ড্রাইভ রোড প্রকল্পে চাক্তাইসহ বারটি খালের জোয়ার নিয়ন্ত্রণ গেট ও পানি নিষ্কষনের পাম্প সংযুক্ত করে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে প্রকল্প প্রস্তবনা পাঠাই।
ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চাক্তাই খালের মুখ হতে কালুরঘাট পর্যন্ত প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে রিভার ড্রাইভ রোড একনেকে অনুমোদন দিয়েছেন। প্রকল্পের সার্ভে ও অন্যান্য কার্যক্রম শুরু হয়েছে এবং অতিশিঘ্রই প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শুরু হবে। এ ব্যাপারে সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা ও দোয়া করছি। এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে জলাবদ্ধা ও জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যাওয়া কি তা চট্টগ্রামের মানুষ চিরতরে ভুলে যাবে।
এসময় সময় উপস্থিত ছিলেন সিডিএ বোর্ড সদস্য কেবিএম শাহজাহান, খাতুনগঞ্জ ট্রেড অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ছগীর আহমেদ, কাউন্সিলর হারুনুর রশিদ, আওয়ামীলীগ নেতা মো. শাহজাহান, মো. কফিল উদ্দিন, আবদুর রহমান, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মো. ঈসমাইল, নগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি নাঈম উদ্দিন রনি, মো. নুরুচ্ছপা প্রমুখ।