চাক্তাই খালের মাটি উত্তোলন পরিদর্শন করলেন নাছির

প্রকাশ:| সোমবার, ১ জুন , ২০১৫ সময় ০৭:৫১ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম নাছির উদ্দীন ১ জুন ২০১৫খ্রি. সোমবার সকালে অবৈধ বিল বোর্ড উচ্ছেদ কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। বিকেলে তিনি বহদ্দার হাট থেকে চকবাজার ধুপির পুল পর্যন্ত চাক্তাই খালের মাটি উত্তোলন কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন কালে মেয়র বলেন, আসন্ন বর্ষা মৌসুমে অতিবর্ষন ও অতি জোয়ারের পানি দ্রুত নিষ্কাষনের লক্ষে প্রাথমিক পর্যায়ে চাক্তাই খালের কয়েকটি অংশে এসকেভেটর দ্বারা মাটি ও আবর্জনা অপসারনের উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। সিটি মেয়র বলেন, পরিকল্পিত উপায়ে এবং আধুনিক কর্ম পরিকল্পনায় নগরীর খালগুলো পর্যায়ক্রমে খনন কাজ হাতে নেয়া হবে। এছাড়াও বড়, মাঝারি ও ছোট নালা-নর্দমা গুলোর মাটি ও আবর্জনা উত্তোলন করা হবে। তিনি বলেন, নগরবাসীর সহযোগিতায় এবং সচেতনতায় নগরীকে আবর্জনা ও জলাবদ্ধতার কবল থেকে মুক্ত করা হবে। এ সময় ভারপ্রাপ্ত মেয়র লায়ন মোহাম্মদ হোসেন, কাউন্সিলর হাজী নুরুল হক, মোহাম্মদ আজম, সচিব রশিদ আহমদ সহ তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, নির্বাহী প্রকৌশলী, সহকারী প্রকৌশলী খাল খনন কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তাগণ এবং সংশ্লিষ্ট এলাকার রাজনৈতিক ও সামাজিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

হযরত জঙ্গীশাহ (রঃ) মসজিদের নির্মাণ কাজ পরিদর্শন শেষে এলাকাবাসীর সাথে সিটি মেয়রের মতবিনিময়

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম নাছির উদ্দীন ১জুন ২০১৫খ্রি. দুপুরে নগরীর বাদুরতলাস্থ নির্মাণাধীন ঐতিহ্যবাহী হযরত জঙ্গীশাহ (রঃ) মসজিদের নির্মাণ কাজ শুভ উদ্বোধন করেন। প্রায় ৪কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন মসজিদটির ৪র্থ তলার ছাদ ঢালাই আজ উদ্বোধন করা হয়। উল্লেখ্য যে, মুসল্লিদের প্রয়োজনে পুরাতন মসজিদটি ভেঙ্গে নতুন করে নির্মাণ করা হচ্ছে। পরে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম নাছির উদ্দীন মসজিদ পরিচালনা কমিটির কর্মকর্তা, সদস্য ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে মতবিনিময় করেন। মতবিনিময়কালে সিটি মেয়র তাকে নির্বাচিত করায় সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, নগরবাসীর সেবার জন্য আমাকে নির্বাচিত করেছেন। নগরবাসীর প্রদত্ত দায়িত্বকে আমি ঈমানি দায়িত্ব হিসেবে কাঁধে নিয়েছি। দায়িত্ব পালনে তিনি নগরবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন। মেয়র বলেন, আল্লাহর ঘর মসজিদ নির্মাণের মত মহৎ কাজ পৃথিবীতে দ্বিতীয় আর নেই। তিনি বলেন, মসজিদের প্রাণ হলো মুসল্লি, ধর্মপ্রাণ সকলকে জামাতের সাথে নামাজ আদায়ে অনুপ্রানিত হওয়ার পরামর্শদেন। প্রসঙ্গক্রমে মেয়র বলেন, নান্দনিক নগরীর প্রথম শর্ত হলো আবর্জনামুক্ত সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন পরিবেশ। তিনি সকলের সচেতনতা ও সহযোগিতা কামনা করে বলেন, যত্রতত্র নালা-নর্দমা ও খালে আবর্জনা ফেলা থেকে নগরবাসী বিরত হলে নগরীর পরিবেশ আরো উন্নত হবে। মেয়র সর্বস্তরের নাগরিকদের আন্তরিক সহযোগিতায় নগরীকে বাস উপযোগী নান্দনিক নগরী হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন। এসময় কাউন্সিলর মোরশেদুল আলম, এম আশরাফুল আলম ও মহিলা কাউন্সিলর জেসমিন পারভীন জেসী, মসজিদ কমিটির সভাপতি আতিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মো.একরাম হোসেন, সহ সভাপতি আলহাজ্ব লোকমান হাকিম মোহাম্মদ ইব্রাহীম, আলহাজ্ব শফিকুল আলম চৌধুরী সহ সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন নুরু, অর্থ সম্পাদক মোহাম্মদ সেলিম, সদস্য ওয়াহিদুল আলম, কামালউদ্দিন, মোহাম্মদ ইলিয়াছ, ফেরদৌস আলম, আবদুল মন্নান, নজরুল ইসলাম, রফিকুল আলম চৌধুরী, দিদারুল আলম চৌধুরী, হারুন অর রশিদ, ইকবাল খান, মহিউদ্দিন, নুরুল আবছার নুরু, সাইদুল আলম মানিক, গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, মোহাম্মদ আবদুল কুদ্দুস মাষ্টার সহ স্থানীয় আওয়ামীলীগ, সমাজ সেবক ও মহল্লার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।