চসিক’র মেয়রকে সংবর্ধনা দিল সিবিএ

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৬ এপ্রিল , ২০১৬ সময় ০৭:২২ অপরাহ্ণ

সিবিএ

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলাহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন শ্রমিক কর্মচারীদের বেতন, ভাতা, বোনাস সহ বিভিন্ন দাবী বাস্তবায়ন করায় ২৬ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকেলে নগর ভবন চত্বরে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন শ্রমিক কর্মচারীলীগ রেজিঃ ৬৮৩ সিবএ’র উদ্যোগে সিটি মেয়রকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিবিএ’র সভাপতি আলহাজ্ব দোস্ত মোহাম্মদ। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব মোহাম্মদ সফর আলী, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, মিসেস জোবাইরা নার্গিস খান,প্যানেল মেয়র নিছার উদ্দীন আহমেদ মঞ্জু, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মো. শফিউল আলম, জাতীয় শ্রমিকলীগ চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি আলহাজ্ব মো. বখতেয়ার উদ্দিন খান, কাউন্সিলর সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু, এইচ এম সোহেল, মো. গিয়াস উদ্দীন, মোহাম্মদ সেলিম উল্লাহ বাচ্চু, মো. জাবেদ, জহুরুল আলম জসিম, শৈবাল দাশ সুমন,সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর মিসেস আবিদা আজাদ, জেসমিন পারভিন জেসী। প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্ণেল মহিউদ্দিন আহমদ, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মাহফুজুল হক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিবিএ সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ মোর্শেদ আলম চৌধুরী, আরো বক্তব্য রাখেন সিবিএ এর সিনিয়র সহ সভাপতি ফরিদ আহমদ, সহ-সভাপতি জাহেদুল আলম চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক রতন দত্ত, অর্থ সম্পাদক রুপন কান্তি দাশ, গোলাম মোস্তফা, রতন শীল, প্রিয়তোষ চক্রবর্তী সাপ্পী, সুভাষ চক্রবর্তী, বাবুল কান্তি সেন, মো. রফিক, দীলিপ দাশ, বাদল দাশ, শফিকুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন, শেখ জালাল উদ্দীন, আবুল মাসুদ, ফরিদ আহমেদ, নন সিবিএ নেতা কাজী মো. আবু তৈয়ব।অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় করেন সিবিএ যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মুজিবুর রহমান ও সহ সাধারন সম্পাদক বিপ্লব কুমার চৌধুরী। সিবিএ আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, আমি বিবেকের দ্বারা পরিচালিত হই। দায়িত্ব গ্রহণ করেই শ্রমিক-কর্মচারীদের স্বার্থ সংরক্ষনে সচেষ্ট হই। সরকার ঘোষিত পে-স্কেলের পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন করা হয়েছে। জাতীয় বেতন স্কেলের আলোকে অস্থায়ীদের বেতন ভাতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। অস্থায়ীদের ঈদ বোনাস ও বৈশাখী বোনাস প্রদান করা হয়েছে। এক্ষেত্রে স্থায়ী অস্থায়ী কোন বিভেদ করা হয় নাই। বর্তমানে দৈনিক ভিত্তিক কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দৈনিক ভিত্তিক বেতন হার পরিবর্তন করে নির্ধারিত হারে বেতন প্রদান করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। শ্রমিক-কর্মচারীদের নিরাপত্তা সামগ্রী, জুতা-মৌজা, হাত মৌজা, হেলমেট,ইউনিফরম সহ যাবতীয় সুবিধাদি নিশ্চিত করা হয়েছে। মেয়র বলেন, জনবল কাঠামো অনুমোদনের পর খালি পদে যোগ্যদের স্থায়ী করার উদ্যোগ গ্রহন করা হবে। জনাব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, পরিচ্ছন্ন বিভাগের সেবক, যান্ত্রিক শাখার চালক, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক সহ যে সকল বিভাগ ও শাখায় জনবলের স্বল্পতা রয়েছে সে সকল স্থানে জনবল নিয়োগের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে। ইতোমধ্যে ডাক্তার, নার্স, প্রকৌশলী নিয়োগ সম্পন্ন করা হয়েছে। মেয়র বলেন, চালকদের জন্য ডরমেটরী নির্মান করা হবে। কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বাসস্থানের স্বল্পতা পুরন করা হবে। সেবকদের বাসস্থানের সমস্যাও থাকবেনা। তিনি বলেন, প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্বার্থে কোন ধরনের ব্যাঘাত ঘটবে না তবে যার যার দায়িত্ব ও কর্তব্য শতভাগ সততা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করতে হবে।দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে গাফিলতি, অনিয়ম বা দূর্ণীতি দৃশ্যমান হলে কেউই রেহাই পাবেন না। ইতোমধ্যে যারা যারা চাকুরী ক্ষেত্রে অনিয়ম ও গাফিলতি করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। যারা সঠিকভাবে দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করবে তারা পুরষ্কৃত হবে। আর যারা অনিয়মের সাথে জড়িত হবে তাদেরকে শাস্তির আওতায় আনা হবে। মেয়র নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকদের আহবান জানান। সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন শ্রমিক ও কর্মচারীলীগ সিবিএ মেয়র বরাবরে একখানা দাবীনামা প্রদান করেন। দাবী নামায় ১৯৮৮ সনের জনবল কাঠামো অনুযায়ী জেষ্ট্যতার ভিত্তিতে অস্থায়ীদের স্থায়ী করা, অবসর প্রাপ্তদের ৮০ মাসের বকেয়া গ্র্যাচুয়েটি প্রদান, খালি ও পরিত্যক্ত জায়গায় ফ্ল্যাট নির্মাণ করে কিস্তিতে ষ্টাফদের মধ্যে বরাদ্দ প্রদান, জরাজীর্ণ ভবন ভেঙ্গে নতুন ভবন নির্মাণ করে সেবকদের বরাদ্দ প্রদান, শ্রমিক-কর্মচারীদের সন্তানদের কর্পোরেশন পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির সুযোগ দেয়া এবং বিনা বেতনে অধ্যয়নের সুযোগ দেয়া, ৩০% পোষ্য নিয়োগ নিশ্চিত করা, অস্থায়ী শ্রমিক, সেবক ও কর্মচারীদের মৃত্যু জনিত অনুদান ১ লক্ষ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২ লক্ষ টাকায় উন্নিত করন, সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত চিকিৎসালয়ে চসিক শ্রমিক কর্মচারী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করন, কিস্তিতে কর্মচারীদের মোটর সাইকেল প্রদান, ভারপ্রাপ্ত ও অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রাপ্তদের যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার আলোকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আতœীকরন ও পদোন্নতি প্রদান, দৈনিক ভিত্তিক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নির্ধারিত বেতনে অস্থায়ী নিয়োগ প্রদান, অস্থায়ীদের স্থায়ীদের ন্যায় মাতৃত্বকালিন ছুটিতে বেতন প্রদান, মেরী ষ্টোপস ক্লিনিকে প্রেষনে কর্মরদের বেতন ভাতা বৃদ্ধি করা সহ ১৪ দফা পেশ করেন।
মেয়র তাদের সকল দাবী’র বিষয়ে আন্তরিক বলে অভিমত ব্যক্ত করেন এবং যৌক্তিক দাবী পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন।