চরপাথরঘাটায় দুই মহিলা ইউপি সদস্যের হাতাহাতি

প্রকাশ:| শনিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি , ২০১৭ সময় ০৮:২৯ অপরাহ্ণ

পটিয়া প্রতিনিধি॥
পটিয়ার কর্ণফুলীর চরপাথরঘাটা ইউনিয়নে বর্তমান ও সাবেক দুই মহিলা ইউপি সদস্যদের মধ্যে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে থুথু নিক্ষেপ ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। শনিবার সকালে কর্ণফুলী চরপাথরঘাটা ইউনিয়ন পরিষদে বর্তমান ইউপি সদস্য আছিয়া বেগম ও সাবেক ইউপি সদস্য ডালিয়া বেগমের কাটাকাটির জের ঘটনাটি ঘটে। তবে স্থানীয় ও অন্যান্য ইউপি সদস্যরা এগিয়ে আসলে পরিস্থিতি শান্ত হয়ে যায়। এ নিয়ে এলাকায় হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।
জানা গেছে, ২০১৬ সালের ইউপি নির্বাচনে চরপাথরঘাটা ইউনিয়নে ৭, ৮ ও ৯নং সংরক্ষিত মহিলা আসনে আছিয়া বেগম সূর্যমুখি ফুল প্রতিক এবং ডালিয়া বেগম বই প্রতিক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। নির্বাচনে সূর্যমুখি ফুল প্রতিকে ৩হাজার ৩১৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়। অপরদিকে ডালিয়া বেগম বই প্রতিকে ভোট পাই ৯৪৬ ভোট। আছিয়া বেগম ইতিপূর্বে উক্ত ওয়ার্ড থেকে দুই বার মহিলা ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়। নির্বাচিত হলেও বর্তমানে নির্বাচন নিয়ে আদালতে মামলা থাকায় নতুন পরিষদের গেজেট প্রকাশ হয়নি। ফলে তাদের শপথ না হওয়ায় দায়িত্বভারও গ্রহণ করতে পারেনি। গতকাল শনিবার সকালে পরাজিত মহিলা ইউপি সদস্য ডালিয়া বেগম চরপাথরঘাটা ইউনিয়ন পরিষদে এসে আছিয়া বেগমকে উদ্দেশ্য করে কুরুছিপূর্ণ ভাষায় কথা বললে এতে আছিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে ডালিয়ার দিকে তেড়ে যায়। নির্বাচনী রেশ ধরে এক পর্যায়ে দুজনের মধ্যে হাতাহাতি, থুথু নিক্ষেপ ও মারামারির ঘটনা ঘটে। পরে অন্যান্য ইউপি সদস্যরা এগিয়ে আসলে তাদের দুজনকে শান্ত করে।
এব্যাপারে ৭,৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের মহিলা ইউপি সদস্য আছিয়া বেগম বলেন, আমার নামে কুরুচিপূর্ণ কথা বলায় মেম্বার ডালিয়ার কথার প্রতিবাদ করেছি। এক পর্যায়ে ডালিয়ার সাথে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে যায় বলে তিনি জানান। অন্যদিকে একই ওয়ার্ডের পরাজিত মহিলা ইউপি সদস্য ডালিয়া বেগম বলেন, আমি কোন ধরনের উস্কানি কিংবা কুরুচিপূর্ণ কথা বলিনি। সে ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি। তবে আছিয়া বেগম তার উপর ক্ষিপ্ত হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন। ঘটনাস্থলে থাকা ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাইফুদ্দীন মানিক বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, উভয়ের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝি হলে অন্যান্য ইউপি সদস্যরা তা সমাধান করে দেয়।