চমেককে বিশ্ববিদ্যালয় করার ঘোষণায় চট্টগ্রাম বিদ্বেষীরা চক্রান্তে লিপ্ত

প্রকাশ:| বুধবার, ২১ মে , ২০১৪ সময় ০৭:৫১ অপরাহ্ণ

নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয় রূপান্তর করার ঘোষণায় চট্টগ্রাম বিদ্বেষী লোকজন সক্রিয় হয়ে চক্রান্তে লিপ্ত হয়েছে। চট্টগ্রামের সর্বস্তরের মানুষকে নিয়ে তাদের এ চক্রান্ত রুখে দেওয়া হবে।

বুধবার দুপুরে নগরীর চশমা হিলের বাসভবনে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন পরিষদ আয়োজিত মতবিনিময় সভায় মহিউদ্দিন চৌধুরী এসব কথা বলেন।

মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘চট্টগ্রামবাসীর ন্যায়সঙ্গত দাবিকে চক্রান্তের মাধ্যমে ভণ্ডুল করে দেয়ার চেষ্টা আগেও করা হয়েছে, এখনও করা হচ্ছে। অযথা একটা বিতর্ক এনে বিভেদ সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে তারা। এতে তারা সফল হবে না।’

তিনি আরো বলেন, ‘চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় যখন প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় সে সময়ও এটা না হওয়ার জন্য একটি পক্ষ চক্রান্তে লিপ্ত ছিল। সিলেকশন কমিটি ট্রেন যোগে চট্টগ্রাম আসার পথে কুমিল্লায় তাদের আটকে দেয়া হয়। এরপর আমরা ঝুঁকি নিয়ে কুমিল্লায় গিয়ে তাদের নিয়ে এসেছিলাম।’

মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘ঢাকা থেকে কিছু মানুষ এসে মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য সভা-সমাবেশ করছে। চট্টগ্রামের উন্নয়ন ক্ষতিগ্রস্থ করার চেষ্টা করছে। মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয় রূপান্তর নিয়ে যে বির্তক তৈরি হচ্ছে তা নিরসনে স্পষ্ট বক্তব্য লিখিত আকারে বিতরণ করা হবে। যারা চক্রান্তে লিপ্ত তাদের বুঝানো হবে। লালদিঘী মাঠে জনসভা করা হবে। যদি তারা বুঝতে না চাই তাহলে ‘ট্রিট ফর ট্রেট’।’

বিএমএ চট্টগ্রামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ডা. নাসির উদ্দিন মাহমুদের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ারুল আজিম আরিফ, উপ উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. বেনু কুমার দে, ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইইবি) চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সাবেক সভাপতি প্রকৌশলী মোহাম্মদ হারুন, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদ চট্টগ্রামের সভাপতি ডা. এ কিউ এম সিরাজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী প্রমুখ।