চবি ছাত্রলীগের সভাপতি মামুনুলের অনুসারিদের মারধর করে ক্যাম্পাস ছাড়া করলো প্রতিপক্ষ

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর , ২০১৩ সময় ০৬:১৬ অপরাহ্ণ

cu চবিচট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সভাপতি মামুনুল হকের অনুসারিদের মারধর করে ক্যাম্পাস থেকে বের করে দিয়েছে প্রতিপক্ষের কর্মীরা। এসময় তার অনুসারীদের কক্ষ ভাংচুর ও প্রতিপক্ষের একজনকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে এগারটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহজালাল হলে এ ঘটনা ঘটে। উভয় পক্ষ বিশ্ববিদ্যালয়ে নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

বিশ্ববিদ্যালয় সুত্র জানায়, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রাহাত হোসেন হিমেল তার অনুসারীদের নিয়ে শাহজালাল হলে প্রবেশ করেন। হিমেল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সভাপতি মামুনুল হকের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পীযুষ কান্তি বর্মন ও দপ্তর সম্পাদক জালাল আহমেদের অনুসারীরা শাহজালাল হলের ৩১১ নং কক্ষ ভাংচুর করে। এসময় কক্ষে অবস্থানরত হিমেলের উপর হামলা চালায়।

পরে হিমেলসহ মামুনুল হকের অনুসারীদের মারধর করে ক্যাম্পাস থেকে বের করে দেওয়া হয়। এসময় হিমেলও প্রতিপক্ষের অনুসারী মেহেরাজকে পায়ে ছুরিকাঘাত করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রাহাত হোসেন হিমেল বাংলানিউজকে বলেন, পীযুষ এবং জালালের নির্দেশে বিনা উস্কানিতে রুবেল, শুভ, মেহেরাজ, সোহেল, অমিতসহ কিছু জুনিয়র ছেলে আমার কক্ষ ভাংচুর করে এবং আমাকে লাঞ্চিত করে।

ছুরিকাঘাতের অভিযোগ প্রসঙ্গে হিমেল বলেন, আমি কেন ছুরিকাঘাত করবো। জানালা কাচ ভাঙ্গার সময় তার পা কেটে যেতে পারে।
বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির কর্তব্যরত পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে ঝামেলা হয়েছিল।অভিযোগ পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা । যেকোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।