চবিতে আধিপত্যের জের ধরে শাটল ট্রেন অবরোধ আহত ১

প্রকাশ:| রবিবার, ৯ নভেম্বর , ২০১৪ সময় ১০:৫১ অপরাহ্ণ

চবি প্রতিনিধি
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ক্যাম্পাসে আধিপত্যেকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা ও মারধরের ঘটনা ঘটেছে। এর জের ধরে ছাত্রলীগের একটি পক্ষ বিশ্ববিদ্যালয় শাটল ট্রেন আটকে দেয়। ফলে ভোগান্তিতে পরে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের শাটল ট্রেন বগি ভিত্তিক সংগঠন ভিএক্স কর্মীরা সিএফসির এক কর্মীকে মারধর করে। আহত ঐ কর্মীর নাম মিঠুন চৌধুরী। সে বিশ্ববিদ্যালয় কম্পিটার সাইয়েন্সের ৩য় বর্ষের ছাত্র।

জানা গেছে, গতকাল রেবাবার কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ২০০৮-০৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মিঠুন চৌধুরী ও সাইফুল ইসলাম রাসেলের পরীক্ষা ছিল। নিরাপত্তার কারণে তারা গত শনিবার পুলিশ প্রশাসনের কাছে আবেদন করে। পুলিশ পরীক্ষা শুরু হওয়ার পূর্বে তাদের দুইজনকে পরীক্ষার হলে দিয়ে আসে। পরে পরীক্ষা শেষে বের হওয়ার সময় তাদের উপর হামলা করে ভার্সিটি এক্সপ্রেস(ভিএক্স) এর কর্মীরা।

ঘটনার জের ধরে সিএফসি কর্মীরা চট্টগ্রাম নগরীর ষোলশহর স্টেশনে বিশ্ববিদ্যালয় শাটল ট্রেন আটকে দেয় এবং ফতেয়াবাদ স্টেশনে ট্রেনের স্লিপারে আগুন লাগিয়ে দেয়। ফলে বিকাল ৪টা এবং সাড়ে ৫টার ট্রেন ক্যাম্পাসে না পৌছায় ভোগান্তিতে পড়ে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ সভাপতি অমিত কুমার বসু বলেন, কাম্পাসে শিবিরকে প্রতিষ্ঠত করার জন্য ভিএক্সের কর্মীরা মিঠুনের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনার বিচার না হলে কাম্পাসে শিক্ষিার সুষ্ঠু পরিশে ফিরিয়ে আনতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে সোমবার থেকে অবরোধসহ কঠোর আন্দোলনের ডাক দিব।

এদিকে এ বাপারে কথা বলার জন্য ভিএক্সের সিনিয়র নেতাকর্মীদের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তারা বলেন,ভিএক্সের কর্মীরা এ ঘটনার সাথে জড়িত না।
এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত— ষোলশহর ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোন ট্রেন ছেড়ে আসেনি। বিশ্ববিদ্যালয় বাস সার্ভিস (তরী) চলাচল করে নি।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর সিরাজ উদ-দৌল্লাহ বলেন, ছাত্রলীগের কর্মীদের মধ্যে সামান্য উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। সমাধানের চেষ্টা চলছে। রাত থেকে শাটল ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হবে।